অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের মধ্যে পার্থক্য জানুন | বাংলা পার্থক্য | Bangla Parthokko

অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের মধ্যে পার্থক্য

জানুন অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের বাংলা পার্থক্য , অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের মধ্যে Parthokko Bangla, okkhangsho o draghimangshor moddhe parthokko,difference between Latitude and longitude bangla, অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ in english , উত্তর গোলার্ধ ও দক্ষিণ গোলার্ধ কাকে বলে ? , নিরক্ষবৃত্ত কাকে বলে ? , নিরক্ষরেখা বা বিষুবরেখা কাকে বলে ? , দক্ষিণ মেরু বা কুমেরু কাকে বলে ? ,পোষ্টটি পড়ুন ।

অক্ষাংশ কাকে বলে ?

পৃথিবীর কেন্দ্র দিয়ে উত্তর-দক্ষিণে কল্পিত রেখাকে অক্ষরেখা বলে।

দক্ষিণ মেরু বা কুমেরু কাকে বলে ?

অক্ষরেখার উত্তর-প্রান্ত বিন্দুকে উত্তর মেরু বা সুমেরু এবং দক্ষিণ-প্রান্ত বিন্দুকে দক্ষিণ মেরু বা কুমেরু বলে।

নিরক্ষরেখা বা বিষুবরেখা কাকে বলে ?

দুই মেরু থেকে সমান দূরত্ব পৃথিবীকে পূর্ব-পশ্চিমে বেষ্টন করে যে রেখা কল্পনা করা হয় তাকে বলা হয় নিরক্ষরেখা বা বিষুবরেখা

নিরক্ষবৃত্ত কাকে বলে ?

পৃথিবীর গোলীয় আকৃতির জন্য এ রেখা বৃত্তাকার, তাই এ রেখাকে নিরক্ষবৃত্ত বলা হয় ।

উত্তর গোলার্ধ ও দক্ষিণ গোলার্ধ কাকে বলে ?

নিরক্ষরেখার উত্তর দিকের পৃথিবীর অর্ধেককে উত্তর গোলার্ধ এবং দক্ষিণ দিকের পৃথিবীর অর্ধেককে দক্ষিণ গোলার্ধ বলা হয়।

অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমাংশ in english

অক্ষাংশ in english Latitude ও দ্রাঘিমাংশ in english longitude

দ্রাঘিমাংশ কাকে বলে ?

প্রাইম মেরিডিয়ান এর পূর্ব বা পশ্চিমে বা স্ট্যান্ডার্ড মেরিডিয়ান এর পশ্চিমে যে কোনও পয়েন্টের কৌণিক দূরত্বকে দ্রাঘিমাংশ বলা হয়।

দ্রাঘিমারেখা কাকে বলে ?

ভূপৃষ্ঠের যে সব স্থানের দ্রাঘিমাংশ সমান বা একই, সেই সব স্থানকে কোনো কাল্পনিক রেখা দ্বারা যুক্ত করলে যে রেখা পাওয়া যায়, তাকে দ্রাঘিমারেখা বলে। 




1. Bangla নামের অর্থ | 100,001+ শিশুর নামের অর্থ জানুন বাংলা
2. পূর্ণরূপ কালেকশন
3. Top 100+ Bangla Facebook Bio | Bengali Bio and status
4. বাংলা Sms – Bangla SMS best collections | Bangla Facebook Status Collection
5. বিখ্যাত ইংরেজি কিছু উক্তি বাংলা অর্থসহ | বাংলা অর্থসহ ইংরেজী উক্তি




মেরিডিয়ান বা ভূ-মধ্য রেখা কাকে বলে ?

একই দ্রাঘিমাংশের সমস্ত বিন্দুকে নিয়ে যে রেখা পাওয়া যায় তাদের বলে মেরিডিয়ান বা ভূ-মধ্য রেখা ।

আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা কাকে বলে ?

শূন্য ডিগ্রি দ্রাঘিমারেখা কে মূলমধ্যরেখা ও ১৮০ ডিগ্রি দ্রাঘিমারেখা কে আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা বলে। 

অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের মধ্যে পার্থক্য

নিম্নে অক্ষাংশ এবং দ্রাঘিমাংশের মধ্যে পার্থক্য দেয়া হলো-

১। বিষুবরেখার উত্তর বা দক্ষিণের যে কোনও বিন্দুর কৌণিক দূরত্বকে অক্ষাংশ বলে।
প্রাইম মেরিডিয়ান এর পূর্ব বা পশ্চিমে বা স্ট্যান্ডার্ড মেরিডিয়ান এর পশ্চিমে যে কোনও পয়েন্টের কৌণিক দূরত্বকে দ্রাঘিমাংশ বলা হয়।

২। অক্ষাংশের দিকটি পূর্ব থেকে পশ্চিমে যা নিরপেক্ষ রেখার সমান্তরাল।
দ্রাঘিমাটির দিক দুটি মেরু ছেদ করে উত্তর থেকে দক্ষিণে হয়।

৩। অক্ষাংশকে উপস্থাপন করতে গ্রীক অক্ষর ফাই (ɸ) ব্যবহৃত হয়।
গ্রীক অক্ষর ল্যাম্বডা (λ) দ্রাঘিমাংশের প্রতীক হিসাবে ব্যবহৃত হয়।

৪। অক্ষাংশের পরিসীমা ০ থেকে ৯০ ডিগ্রি পর্যন্ত।
দ্রাঘিমাংশ ০ থেকে ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত থাকে।

৫। নিরক্ষীয় থেকে উত্তর এবং দক্ষিণ মেরুতে সমান্তরাল বৃত্তগুলি অক্ষাংশের সমান্তরাল হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়।
দুটি মেরু থেকে রেফারেন্সের রেখাগুলি দ্রাঘিমাংশের মেরিডিয়ান হিসাবে পরিচিত।




1. Bangla নামের অর্থ | 100,001+ শিশুর নামের অর্থ জানুন বাংলা
2. পূর্ণরূপ কালেকশন
3. Top 100+ Bangla Facebook Bio | Bengali Bio and status
4. বাংলা Sms – Bangla SMS best collections | Bangla Facebook Status Collection
5. বিখ্যাত ইংরেজি কিছু উক্তি বাংলা অর্থসহ | বাংলা অর্থসহ ইংরেজী উক্তি




৬। অক্ষাংশ রেখার মোট সংখ্যা ১৮০ ।
মোট ৩৬০ টি দ্রাঘিমাংশ রেখা রয়েছে।

৭। অক্ষাংশের সমান্তরালগুলি অসম দৈর্ঘ্যের।
দ্রাঘিমাংশের মেরিডিয়ান সমান দৈর্ঘ্যের।

৮। অক্ষাংশের রেফারেন্সগুলির রেখাগুলি একে অপরের সাথে সমান্তরাল।
দ্রাঘিমাংশের রেফারেন্সগুলির রেখাগুলি একে অপরের সমান্তরাল নয়।

৯। অক্ষাংশ তাপ অঞ্চলগুলি যেমন- টরিড অঞ্চল, শিষ্য অঞ্চল এবং ফ্রিজিড অঞ্চলগুলিকে শ্রেণীবদ্ধ করতে ব্যবহৃত হয়েছে।
দ্রাঘিমাংশ কোন স্থানের সময় ও তারিখ নির্নয় করতে ব্যবহৃত হয়।

১০। অক্ষাংশের অভিমুখ পূর্ব থেকে পশ্চিম।
দ্রাঘিমাংশের অভিমুখ উত্তর থেকে দক্ষিণে।

১১. অক্ষরেখার অপর নাম সমাক্ষরেখা।
দ্রাঘিমারেখার অপর নাম দেশান্তর রেখা।

অক্ষরেখা ও দ্রাঘিমারেখার পার্থক্য  

১. অক্ষরেখার অপর নাম সমাক্ষরেখা। দ্রাঘিমারেখার অপর নাম দেশান্তর রেখা।
২. অক্ষরেখা গুলি পূর্ব-পশ্চিমে বিস্তৃত। দ্রাঘিমারেখা গুলি উত্তর-দক্ষিনে বিস্তৃত।
৩. অক্ষরেখা গুলি পরস্পরের সমান্তরাল। দ্রাঘিমারেখা গুলি পরস্পরের সমান্তরাল নয়।
৪. অক্ষরেখা গুলি পূর্নবৃত্ত। দ্রাঘিমারেখা গুলি অর্ধবৃত্ত। 

৫. প্রতিটি অক্ষরেখার কোণের সমষ্টি ৩৬০ ডিগ্রি। প্রতিটি দ্রাঘিমারেখার কোণের সমষ্টি ১৮০ ডিগ্রি।




1. Bangla নামের অর্থ | 100,001+ শিশুর নামের অর্থ জানুন বাংলা
2. পূর্ণরূপ কালেকশন
3. Top 100+ Bangla Facebook Bio | Bengali Bio and status
4. বাংলা Sms – Bangla SMS best collections | Bangla Facebook Status Collection
5. বিখ্যাত ইংরেজি কিছু উক্তি বাংলা অর্থসহ | বাংলা অর্থসহ ইংরেজী উক্তি





৬. এক ডিগ্রি অন্তর মোট ১৮০ টি অক্ষরেখা রয়েছে। এক ডিগ্রি অন্তর মোট ৩৬০ টি দ্রাঘিমারেখা রয়েছে।
৭. সর্বনিম্ন অক্ষরেখার মান  শূন্য ডিগ্রি ও সর্বোচ্চ অক্ষরেখার মান ৯০ ডিগ্রি উত্তর বা দক্ষিণ। সর্বনিম্ন দ্রাঘিমারেখার মান শূন্য ডিগ্রি ও সর্বোচ্চ দ্রাঘিমারেখার মান ১৮০ ডিগ্রি। 
৮. একই  অক্ষরেখায় অবস্থিত বিভিন্ন স্থানের মধ্যে স্থানীয় সময়ের পার্থক্য দেখা যায়। একই দ্রাঘিমারেখায় অবস্থিত বিভিন্ন স্থানের মধ্যে স্থানীয় সময় একই রকম হয়।
৯. অক্ষরেখা গুলির দৈর্ঘ্য সমান নয়। দ্রাঘিমারেখা গুলির দৈর্ঘ্য সমান। 
১০. পৃথিবীর মাঝ বরাবর বিস্তৃত শূন্য ডিগ্রি অক্ষরেখা (নিরক্ষরেখা) পৃথিবীকে উত্তর ও দক্ষিণ গোলার্ধে ভাগ করেছে।শূন্য ডিগ্রি দ্রাঘিমারেখা (মূলমধ্যরেখা) পৃথিবীকে পূর্ব ও পশ্চিম গোলার্ধে ভাগ করেছে। 
১১. অক্ষরেখার ওপর কোন স্থানের জলবায়ু নির্ভর করে। অন্যদিকে দ্রাঘিমা রেখার সাহায্যে কোন স্থানের সময় ও তারিখ নির্নয় করা হয়।  

Author: drmasud