এন্ড্রয়েড যেকারনে এত জনপ্রিয় … এই আই-টেকটি পড়লে বুঝবেন

এন্ড্রয়েড বর্তমানে এত জনপ্রিয় যা বলার বাহিরে।এন্ড্রয়েড জনপ্রিয় হবার একটাই কারন তা হল এর ব্যাবহার বান্ধব ইন্টারফেস , লাইসেন্স ফ্রী মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম । যে কারণে দিন দিন লিনাক্স ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়ে চলছে, সে কারণেই আমরা অনেকেই এনড্রয়েডে আসক্ত হয়ে পড়ছি। আমরা তো সাধারণ ব্যবহারকারী – কিন্তু বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন ও মোবাইল প্রোডাক্টের নির্মাতারাও এই আসক্তির শিকার হয়ে, উইন্ডোজ, সিমবিয়ান, আইওএস ইত্যাদি ছেড়ে এনড্রয়েড নির্ভর পণ্য তৈরি করে চলেছে।বর্তমান বিশ্বের ৪৫ ভাগ স্মার্ট ফোন এন্ড্রয়েড চালিত । এর বেশ কিছু ভার্সন আছে । সব অপারেটিং সিস্টেম উন্মুক্ত , সবচেয়ে মজার বিষয় হল এন্ড্রয়েড এর সব ভার্সন ই কোন না কোন সুস্বাদু খাবারের নামে নামকরন হয়েছে ।

ANDROID-Mobile

তাছাড়া আর যেসকল বিষয় এন্ড্রয়েড কে এতো জনপ্রিয় করেছে –

– নিজস্ব ওপেন সোর্স ওয়েবকিট ভিত্তিক ইনটিগ্রেটেড ব্রাউজার ছাড়াও অনন্য বিখ্যাত ব্রাউজার যেমন অপেরা, ফায়ারফক্স বাবহারের সুবিধা।

– উন্নত মিডিয়া সাপোর্ট যা বিভিন্ন অডিও ও ভিডিও ফরম্যাট (যেমন MPEG4, H.264, MP3, AAC, AMR, JPG, PNG, GIF) সাপোর্ট করে।

– ফ্রী লাইব্রেরী – আপনি পাবেন গুগল বুকস, জিনিও ম্যাগাজিন, বা এনড্রয়েড পিট থেকে শত শত ই-বই (ePub ফরম্যাটে)।

– উন্নত ক্যামেরা, জি পি এস, কম্পাস, এক্সেলারোমিটার সাপোর্ট।

– জি এস এম টেলিফোনি, ব্লু-টুথ, এজ, থ্রি-জি, ওয়াই-ফাই সাপোর্ট ।

– উন্নত গ্রাকিক্স সাপোর্ট ।

– উন্নত ডেভেলপমেন্ট এনভায়রনমেন্ট এবং ডালভিক ভার্চুয়াল মেশিন ।

– “এনড্রয়েড মার্কেট” নামের প্রায় ছয় লক্ষ সফটওয়্যারের এক বিশাল ভাণ্ডার যেখানে বেশিরভাগ সফটওয়্যারই ফ্রী ও সম্পূর্ণ কার্যকরী।

– বিভিন্ন ওয়েবসাইট/ওয়াপসাইট থেকে সফটওয়্যার ডাউনলোডের সহজলভ্যতা। আইফোন বা আইপডের জন্য কোন সফটওয়্যার বা মিডিয়া আপনার ডিভাইসে ব্যবহার করতে হলে আপনাকে আ্যপেলের ওয়েবসাইট বা আইটিউনসের সাহায্য নিতেই হবে। কিন্তু এনড্রয়েডের ডাউনলোড আপনি যে কোন থার্ড পার্টি ওয়েবসাইট (যেখানে পাওয়া যায়)

– সম্পূর্ণ ফ্ল্যাশ সাপোর্ট যা ভার্সন ২.২ থেকে পাওয়া যাচ্ছে।

– বর্তমানে যে হারে এনড্রয়েড নির্ভর ফোন ও মোবাইল কম্পিউটিং ডিভাইস তৈরি হচ্ছে, তাতে আপনাকে নির্দিষ্ট কোন ব্রান্ডে আটকে থাকতে হবে না। ফোন ও মোবাইল কম্পিউটিং ডিভাইস হিসেবে আপনি বেছে নিতে পারেন Samsung, HTC, Dell, Acer, Lenovo, Motorola, Haier, Huawei ইত্যাদি।

এছাড়া আমাদের বাংলাদেশ এ এখন সিম্ফনির ( symphony ) তিনটি এনড্রয়েড হ্যান্ডসেট পাওয়া যাচ্ছে ।

এনড্রয়েড এর জয়যাত্রা:
– এনড্রয়েড ভার্সন ২.০/২.১ (Eclair) – অক্টোবর ২৬, ২০০৯ ।

– এনড্রয়েড ভার্সন ২.২ (Froyo) – মে ২০ , ২০১০ ।

– এনড্রয়েড ভার্সন ২.৩ (Gingerbread) – ডিসেম্বর ৬, ২০১০ ।

– এনড্রয়েড ভার্সন ৩.০/৩.১ (Honeycomb) – ফেব্রুয়ারি ২২, ২০১১ ।

– এনড্রয়েড ভার্সন ৪.০ (Ice Cream Sandwich) – অক্টোবর ১৯ , ২০১১ ।

– এনড্রয়েড ভার্সন ৪.১ (Android 4.1 Jelly Bean)- জুলাই,২০১২ ।

 

সূত্র : ইন্টারনেট

Author: shamvil

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *