কয়েকটি ভাইরাস ও এদের প্রতিকার সম্পর্কে জানুন পর্ব – ২

সবাইকে ভাইরাস শুভেচ্ছা । আমাদের কম্পিউটার নস্ট হবার অনেক কারণ রয়েছে । কিন্তু নস্ট হবার একটি মূল কারণ হল ভাইরাস । আমরা যদি এইসব ভাইরাস সম্পর্কে কিছু জানি তাহলে বাচা কষ্ট হবে না। আজ কয়েকটি ভাইরাস ও এদের প্রতিকার সম্পর্কে জানুন পর্ব ২ । তাই চলুন আজ আরও কয়েকটি ভাইরাসের কাজ ও কিভাবে এদের প্রতিরোধ করা যায় সে সম্পর্কে কিছু জানি।

১.এ্যাবি সিস্টেম স্পাই

২. ডাহিজ

৩.ক্রাগল

৪.১২৩ কি লগার

৫.মাই স্পাই প্রোটেক্টর

.এবি সিস্টেম স্পাই:

এটি রিমোট এক্সেস করে সিস্টেমের ক্ষতি সাধন করে।এটি সিস্টেমে sys.exe, sss.exe ফাইল তৈরি করে ছড়ায়।এটি একটি বাণিজ্যিক রিমোট এক্সেস ধরনের প্রোগ্রাম,যা সিস্টেমে ঘাপটি মেরে বসে থাকে এবং সিস্টেমের এ্যাক্টিভিটি লক্ষ করে সময় সুযোগমতো সিস্টেমের ক্ষতি করে থাকে।উইন্ডোজ ভিত্তিক সব অপারেটিং সিস্টেমেই এটি নির্যাতন চালিয়ে যায়।

প্রতিকার:দূর করার জন্য জনপ্রিয় এ্যান্টিভাইরাস গুলোই যথেস্ট।

.ডাহিজ :

এটার মূল কাজ চুরি করা।এটা আপনার কম্পিউটারের বিভিন্ন পার্সোনাল তথ্য তার ক্রিয়েটের কাছে সহিসালামতে পোছাতে অনেক ওস্তাদ।যা হ্যাকিংটুল হিসেবে পরিচিত।ভিস্তাতেও এটা কাজ করতে পারে সুন্দর ভাবে।

প্রতিকার:দূর করার জন্য জনপ্রিয় এ্যান্টিভাইরাস গুলোই যথেস্ট।

.মাই স্পাই প্রোটেক্টর:

এটা নিজেকেই রিকভারি প্রোগ্রাম হিসেবে দাবি করবে।ভুলেও কখনো এটাকে এ্যাকটিভেট করবেননা।এটি আসলে একটা স্প্যাম জাতীয় প্রোগ্রাম।এটিকে যখন আপনি এ্যাক্টিভেট করবেন,তখন সেটি আপনার সম্পূর্ণ সিকিউরিটি সিস্টেমের পাস্ওয়ার্ড রিকভারি করে ফেলবে।এর ফলে সিস্টেমের নিজস্ব কোন সিকিউরিটি থাকবেনা।যে কেউ সিস্টেম এ্যাক্সেস করতে পারবে।

প্রতিকার(১):দূর করার জন্য জনপ্রিয় এ্যান্টিভাইরাস গুলোই যথেস্ট । তার পর ও দূর না হলে প্রতিকার (২) দেখুন

প্রতিকার(২):কম্পিউটারটি রিস্টার্ট করে বায়োস পার হবার সময় F8 বাটন চেপে অপারেটিং সিস্টেমের ওএস চয়েজ মেনুর সেফ মোড অপশন থেকে সেফ মোড চালু করতে হবে।তারপর পুরো সিস্টেম চার্জ করে ফাইলটির সব কপি খুজে বের করতে হবে।Ctrl+A একসাথে দুই বাটন চেপে সব ফাইল সিলেক্ট করে শিফ্ট চেপে স্থায়ী ভাবে ডিলিট করতে হবে।এবার রিস্টার্ট করলেই আপনার সিস্টেম এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে।

.ক্রাগল :

এটি ভাইরাস নয় ,কিন্তু বিরক্তের শেষ করে ছাড়ে ইউজার।এটি উন্ডোজের সব অপারেটিং এমনকি ভিস্তাতেও এটা বিরক্তের শেষ দেখাই,উদাহরনস্বরূপ ধরুন আপনার মেমোরি যদি ৩২০ জিবি হয় ,তাহলে এর আক্রমনের পর আপনার মেমোরি দেখাবে,২০০ জিবি।বুঝলেন তো কান্ডকারখানা।

প্রতিকার:দূর করার জন্য জনপ্রিয় এ্যান্টিভাইরাস গুলোই যথেস্ট।

৫.১২৩ কি লগার :

এটিও এক ধরনের স্পাইওয়্যার।চোরা কাজকারবারি করাই এটার অভ্যাস।ভিস্তাকেও ছাড়েনা।

প্রতিকার:দূর করার জন্য জনপ্রিয় এ্যান্টিভাইরাস গুলোই যথেস্ট।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *