গ্রীন হাউজ ইফেক্ট বলতে কি বোঝায় ? | প্রশ্ন – উত্তর – বিস্তারিত | COMILLAIT| Bangla Technology Blog | বাংলা প্রযুক্তি ব্লগ

গ্রীন হাউজ ইফেক্ট বলতে কি বোঝায় ? | প্রশ্ন – উত্তর – বিস্তারিত

লেখক : | ০ টি কমেন্ট | 16 বার দেখা হয়েছে দেখা হয়েছে । শেয়ার করে আপনবর বন্ধুদের জানিয়ে দিন ।

বর্তমানে পৃথিবীর বায়ুমন্ডলও অনেকটা গ্রীন হাউজের মত আচরণ করছে।কারণ প্রতিনিয়ত গ্রীন হাউজ গ্যাস বৃদ্ধি পাচ্ছে । বায়ুমন্ডলে অবস্থিত কিছু গ্যাস ও অন্যান্য উপাদান ( কার্বন ডাই অক্সাইড, মিথেন, জলীয় বাস্প নাইট্রোজেন অক্সাইড প্রভৃতি) পৃথিবীর তাপমাত্রাকে ধরে রাখছে গ্রীন হাউজের কাঁচের দেওয়ালের মতো ।

☻ বিভিন্ন গ্রীনহাউস গ্যাসের নাম ও তাদের উসঃ গ্রীন হাউজ প্রভাব বা গ্রীন হাউজ এফেক্ট সৃষ্টিকারী বিভিন্ন গ্যাসগুলি ও তাদের উৎসগুলি হলো নিম্নরূপ –
১.কার্বন-ডাই অক্সাইড:
 বনজ সম্পদ দহন, আগ্নেয়গিরি, জৈব জ্বালানি, বনভূমি
বিনাশ, ভূমিব্যবহার পদ্ধতি প্রভৃতি ।
২.মিথেন:
 জলাভূমি, প্রাকৃতিক গ্যাস এবং তেলের নির্যাস, জৈবসার, ধান
উৎপাদন, গবাদিপশু প্রভৃতি ।
৩.নাইট্রাস অক্সাইড:
 বন, ঘাস, সমুদ্র, মাটি, সার, জৈবসার, জৈবজ্বালানী প্রভৃতি
৪.ক্লোরোফ্লোরোকার্বন (CFC):
 রেফ্রিজারেটর, এরোসল স্প্রে, ফোম, রং প্রভৃতি ।
৫.ওজোন:
 প্রাকৃতিকভাবে সূর্যের আলো দ্বারা অক্সিজেন থেকে সৃষ্ট
এবং কৃত্রিমভাবে ফটোকেমিক্যাল ধোয়া উৎপাদন থেকে সৃষ্ট ।

 বায়ুমন্ডলে গ্রীন হাউজ প্রভাব / গ্রীন হাউজ গ্যাসের পরিমাণ ক্রমশ বৃদ্ধির কারণঃ বায়ুমন্ডলে গ্রীন হাউজ প্রভাব ও গ্রীন হাউজ গ্যাসের পরিমাণ ক্রমশ বৃদ্ধির কারণগুলি হলো নিম্নরূপ –
১) জীবাশ্ম জ্বালানীর পরিমান বৃদ্ধিঃ কলকারখানা, যানবাহন, বিদ্যুৎ উৎপাদন সবকিছুতেই জীবাশ্ম জ্বালানী জ্বালানোর পরিমাণ দিন দিন বাড়ছে, ফলে কার্বন ডাই অক্সাইড নির্গমনের পরিমাণও দিনে-দিনে লাফিয়ে বাড়ছে । 
২) রাসায়নিক সারের ব্যবহার বৃদ্ধিঃ কৃষিতে নাইট্রোজেন সার (যেমন – ইউরিয়া) ব্যাবহারের ফলে বাড়ছে নাইট্রোজেন অক্সাইড গ্যাসের পরিমাণও । 
৩) অরণ্যচ্ছেদনঃ গাছপালা উজাড় হওয়ার ফলে বায়ুমন্ডলের কার্বন ডাই অক্সাইড শুষে নেওয়ার ক্ষমতা কমে যাচ্ছে । 
৪) মিথেনের পরিমান বৃদ্ধিঃ গাছপালার পচন, কৃষিজ বর্জ্য এবং জীব জন্তুদের বর্জ্য থেকে সৃষ্ট মিথেন গ্যাসের পরিমাণও ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে ।

 

 

লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে?
FavoriteLoadingপ্রিয় পোষ্ট যুক্ত করুন

১টি কমেন্ট করুন

*