চলুন দেখে আসি উইন্ডোজ 7/8 / XP এর জন্য শীর্ষ 5 টি ফাইল ও ফোল্ডার লকার সফটওয়্যার!

ইন্ডোজ 7/8 / এক্সপি পিসি ব্যাবহারকারীদের কাছে ফাইল এবং ফোল্ডার রক্ষা করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ব্যক্তিগত পিসিতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফাইল থাকে যেগুলো অন্যদের সাথে শেয়ার করা যায়না, কিন্তু সম্পর্ক ও সম্মানের খাতিরে অন্য কোন ব্যাক্তি পিসি ব্যাবহার করতে চাইলে তাকে করতে মানা করা যায়না। তাহলে আপনার পার্সোনাল ফাইল ও ফোল্ডারের সিকিওরিটি কিভাবে রক্ষা করবেন? হ্যা, আপনার পিসির পার্সোনাল ফাইল ও ফোল্ডারের সিকিওরিটি রক্ষা করার জন্য অনেক সফটওয়্যার আছে যেগুলো আপনার ফাইল ও ফোল্ডার লক বা হাইড করতে সাহায্য করবে। তাহলে চলুন দেখে আসি উইন্ডোজ 7/8 / XP এর জন্য শীর্ষ 5 টি ফাইল ও ফোল্ডার লকার সফটওয়্যার!

 

লক-এ ফোল্ডার

1

 

লক-এ ফোল্ডারের মাধ্যমে শুধুমাত্র একটি একক মাস্টার পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে আপনার পিসির যেকোন ফোল্ডার লক করতে পারবেন এবং আপনার লক করা ফোল্ডারে অন্য কোন ব্যাবহারকারী অ্যাক্সেস করতে পারবেনা। মনে রাখবেন, আপনার সুরক্ষিত ফোল্ডার অ্যাক্সেস পুনরুদ্ধার করতে এই প্রোগ্রাম পুনরায় চালু করতে হবে এবং আনলক বাটন ব্যবহার করতে হবে। এখান থেকে ডাউনলোড

 

ফোল্ডার গার্ড

2

আপনি এই প্রোগ্রামের মাধ্যমে আপনার ব্যক্তিগত পাসওয়ার্ড দ্বারা যে কোন ফাইল লক বা হাইড করতে পারবেন। এই প্রোগ্রামের চমৎকার বৈশিষ্ট্য হল যে, এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফাইল ও ফোল্ডার রক্ষা করার বিভিন্ন ফিল্টার তৈরি করবে এবং আপনি বেছে বেছে আপনার কম্পিউটারে নিবন্ধিত ব্যবহারকারী অ্যাকাউন্টের জন্য ফাইল ও ফোল্ডারে এক্সেস করার অনুমতি দিতে পারবেন। এখান থেকে ডাউনলোড

 

ফোল্ডার প্রটেক্টর

3

ফোল্ডার লক করার জন্য এই ফোল্ডার প্রটেক্টর খুবই ভাল একটা প্রোগ্রাম। এই প্রোগ্রাম এনক্রিপশন ব্যবহার করে আপনার ফোল্ডারের সিকিওরিটি রক্ষা করবে। এই প্রোগ্রাম ব্যাবহার করতে প্রথমে আপনাকে প্রোগ্রাম রান করতে হবে, পাসওয়ার্ড দিতে হবে এবং আপনার নির্বাচিত ফোল্ডার নির্বাচিত করতে হবে। এবার আপনার ফোল্ডার অন্য ইউজার থেকে নিরাপদ। আপনি এই প্রোগ্রাম এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন

 

ফোল্ডার লক লাইট

4

ফোল্ডার লক বা হাইড করার জন্য অসাধারণ একটি প্রোগ্রাম হচ্ছে ফোল্ডার লক লাইট। আপনি এই প্রোগ্রাম ব্যাবহার করে আপনার পুরো ড্রাইভ লক বা হাইড করে দিতে পারবেন। আপনার প্রটেক্ট করা ফাইল অন্য কোন ব্যাক্তি বা ইউজার এক্সেস করতে পারবেনা। এই প্রোগ্রাম চালু করতে গেলে প্রথমে আপনাকে মাস্টার পাসওয়ার্ড দিতে হবে এবং প্রটেক্টকৃত ফাইল বা ফোল্ডার ওপেন করতে গেলে মাস্টার পাসওয়ার্ড দিয়ে ওপেন করতে হবে। এখান থেকে ডাউনলোড

 

আজকের মত এখানেই, আশা রাখি আগামী দিনে আপনাদের সামনে নতুন কোনো বিষয় নিয়ে হাজির হতে পারব।

Author:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *