দেশি অ্যান্ড্রয়েড ব্র্যান্ডগুলো ১০০% এর চেয়েও বেশি কমদামেই নয় বরং ভালই বলব।।

 দেশি ব্র্যান্ডগুলো বিদেশী ব্র্যান্ড এর অ্যান্ড্রয়েড গুলোর সাথে ভালোই প্রতিযোগিতা করছে। আমাদের আরেকটু সমালোচনা, পাশাপাশি দেশি ব্র্যান্ডগুলো সাদরে গ্রহণ করে নিলে খুব দ্রুতই আমাদের ব্র্যান্ড গুলো আন্তর্জাতিক বাজারে অবস্থান নিতে পারবে।

আসুন দেশটাকে আরেকটু বেশি ভালোবাসি। আমাদের প্রয়োজন গুলো যতটুকূ সম্ভব দেশীয় পন্য দিয়ে মেটানোর চেষ্টা করি।

এখন আমরা চায়না থেকে রিব্র্যান্ডিং করে স্মার্টফোন নিয়ে আসছি, রিব্র্যান্ডিং করে আনার দিন হয়তো খুব বেশিদিন থাকবেনা। আমাদের SYMPHONY এবং WALTON , যাদের ফ্যাক্টরি করার সামর্থ্য আছে। বিশেষ করে WALTON ইতিমধ্যে এই খাতে বিনিয়োগের পথে অনেকটা এগিয়ে।

আমরা অনেকেই মনেকরি, চায়না রিব্র্যান্ডিং মানেই খারাপ, আসলে এটা সম্পূর্ন ভুল ধারনা। I phone, SONY Xperia, SAMSUNG GALAXY সব নামিদামি ব্র্যান্ড প্রস্তুত হয় চীনের বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে।

আমার চোখে দেশীয় স্মার্টফোনের মধ্যে কয়েকটি অত্যান্ত শক্তিশালী দিক ধরা পরেছে, যা শেয়ার করার জন্যেই আজ এই লেখা।

যেমন WALTON PRIMO F1 এবং SONY XPERIA J একই Configuration. কিন্তু Xperia J এর দাম 125% বেশি। ৯৯৯০ টাকা থেকে বেড়ে ২২৫০০ টাকা।

আসুন তুলনা মূলক বিশ্লেষন গুলো দেখি। নিম্নের ১০ টা ফিচারের ভিত্তিতে আমরা স্মার্টফোনের তুলনা মূলক বিশ্লেষন করে দেখতে পারি।

1. 3G

2. Minimum 1Ghz Processor.

3. Minimum 512 MB Ram.

4. Minimum 4GB Rom (internal build in memory)

5. GPU (Graphics processing Unit)

6. Front Facing Camera, supporting 3G and Skype video call.

7. Minimum 5MP Auto focus camera. support face detection, GEO tagging.

8. Accelerometer, Proximity sensor.

9. GPS.

10. WiFi.

উপরোক্ত ১০ টা ফিচারের ভিত্তিতে নিচে মূল্য সহ কয়েকটি স্মার্টফোনের তুলনা তুলে ধরা হলো। তারপর সিদ্ধান্ত আপনার, বেশী টাকায় Better Brand কিনবেন, নাকি কম টাকায় দেশিয় Brand-কে সমৃদ্ধ করবেন।

Note: Front Facing Camera-এর ক্ষেত্রে YES দেয়া হয়েছে যে Camera, 3G এবং Skype –এর মত ওয়েব বেজড ভিডিও কল সাপোর্ট করে।tech

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *