প্রাণী বৈচিত্র্য(পর্বঃ১৭)|পিট ভাইপার

র্যাটল সাপ (ইংরেজি ভাষায়:
Rattlesnake — উচ্চারণ: র্যাট্ল্স্নেইক)
একপ্রকার বিষধর সাপ। এরা Crotalus
এবং Sistrurus গণের অধিভু্ক্ত।
এরা সেসমস্ত বিষাক্ত সাপের
উপপরিবারের অন্তর্গত, যারা সাধারণত পিট ভাইপার নামে পরিচিত। এটি মূলত মরু
এবং পাথুরে অঞ্চলের সাপ। পৃথিবীতে র্যাটল সাপের প্রজাতির
সংখ্যা প্রায় ৩০। এছাড়া অনেকগুলো উপ-
প্রজাতিও রয়েছে। এর র্যাটল নামকরণের
কারণ তাঁদের লেজের শেষাংশে ঝুমঝুমির
মতো শ…ব্দ উৎপন্নকারী একটি অংশ।
ইংরেজি rattle (র্যাটল) শব্দের বাংলা অর্থ ঝুমঝুমি। কোনো রকম
হুমকি বা বিপদের সম্মুখীন হলে তারা এই
র্যাটল ব্যবহার করে। র্যাটল সাপের
বৈজ্ঞানিক নাম Crotalus এসেছে গ্রিক
শব্দ κρόταλον থেকে, যার
ইংরেজি ক্যাসটানেট (castanet)। এটি এক প্রকার বাদ্যযন্ত্র। Sistrurus নামক
ল্যাটিন শব্দটি এসেছে গ্রিক শব্দ
Σείστρουρος বা Seistrouros থেকে,
যার ইংরেজি অর্থ ‘tail rattler’ (বাংলা:
ঝুমঝুমি লেজ)। এছাড়া ঝুমঝুমির ন্যায়
একপ্রকার প্রাচীন মিশরীয় বাদ্যযন্ত্র সিসট্রাম (sistrum) থেকেও
শব্দটি উৎপত্তি হয়েছে বলে ধরা হয়।
বেশিরভাগ র্যাটল সাপ
বসন্তকালে প্রজননে অংশ নেয়। কিছু
প্রজাতি ডিম পাড়ে, এছাড়া সব প্রজাতিই
সরাসরি বাচ্চা জন্ম দেয়। বাচ্চা সাপ জন্ম থেকেই আত্মনির্ভরশীল। জন্মের পর তাদের
মায়ের সংস্পর্শের প্রয়োজন হয় না,
এবং জন্মের পর মা সাপও বাচ্চার
সাথে থাকে না।

Author: রিয়াদ হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *