ফাইল শেয়ারিং করার জন্য জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন | COMILLAIT| Bangla Technology Blog | বাংলা প্রযুক্তি ব্লগ

ফাইল শেয়ারিং করার জন্য জনপ্রিয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন

লেখক : | ০ টি কমেন্ট | 94 বার দেখা হয়েছে দেখা হয়েছে । শেয়ার করে আপনবর বন্ধুদের জানিয়ে দিন ।

কেমন আছেন সবাই আশাকরি সবাই ভাল আছেন। আজ আমি আপনাদের সামনে নতুন একটি বিষয় নিয়ে হাজির হয়েছি। আজ আমি আপনাদের কাছে মজার কিছু অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে আলোচনা করব।

আজ আমি আলোচনা করব ফাইল শেয়ারিং করার জন্য জনপ্রিয় কিছু অ্যাপ নিয়ে। আপনার খুব জনপ্রিয় একটা গান বা ছবি দেখলেন আপনার বন্ধু শুনছে বা দেখছে। তখন সেটা আপনার স্মার্টফোনে নিতে খুব ইচ্ছা হবে। কিন্তু স্মার্টফোনে নিতে ব্লটুথের সাহায্য নিলে সময় বেশি প্রয়োজন হবে। আবার অনেক সময় দেখা যাই সেটা নেয়া খুবই ঝামেলার কাজ। এখন থেকে এই সব স্মরণীয় সব ফাইল নিতে আপনাকে টেনশন করা লাগবে না। দ্রুত তা স্থানান্তর করতে প্রয়োজন হবে ফাইল শেয়ারিং অ্যাপ্লিকেশন। এইসব ফাইল শেয়ারিং অ্যাপ ব্যাবহার করলে ব্লটুথের চেয়েও ৪০ গুন বেশি কাজ করবে। চলুন দেখে নেয়া যাক এরকম কিছু ফাইল শেয়ারিং অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ।

১। শেয়ারইট

shair itফাইল শেয়ারিং করার জন্য জনপ্রিয় যে সব অ্যাপ রয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম অ্যাপ হল শেয়ারইট। শেয়ারইট অ্যাপ খুবই দ্রুত সময়ে ফাইল আনা নেয়া করে থাকে। এই অ্যাপ ব্যাবহার করে আপনি আপনার পছন্দ মতো ফাইল,গান,মুভি যেকোনো সময় যেখান সেখান থেকে নিতে পারবেন। এটি ব্লটুথ থেকে ৪০ গুণ দ্রুত গতিকে কাজ করে থাকে।

এক নজরে অ্যাপটির ফিচারগুলোঃ-

১. নির্দিষ্ট দুরত্বের মাঝে হলেও অ্যাপটি ইন্সটল করা আছে এমন ডিভাইস অনায়াসেই নিজেই স্ক্যান করে খুঁজে বের করবে।

২. অ্যাপটির সাহায্যে একত্রে ৫ জনকে ফাইল শেয়ার করা যাবে।

৩. প্রয়োজনে একই সঙ্গে একাধিক ব্যক্তিকে ফাইল শেয়ার করাও সম্ভব।

৪.এটি একটি অফ লাইন অ্যাপ যেটা ব্যাবহার করতে কোন ঝামেলা হবে না।

৫. অ্যাপটিতে রয়েছে থিম পরিবর্তন অপসন।

সুন্দর এই অ্যাপ টি ডাউনলোড করুন এখান থেকে।

২। আসুস শেয়ার লিংক

shair link asusফাইল শেয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে চমৎকার একটি অ্যাপ্লিকেশন হল আসুস শেয়ার লিংক। এটা শেয়ারইট অ্যাপ এর নতুন সংস্করণ। অনেক সময় ফাইল আদান-প্রদানে করতে এবং অন্য একটি ডিভাইসের সঙ্গে যুক্ত হতে সময় বেশি নেয়া হতে এটা আপনাকে সাহায্য করবে। এটি ব্যবহার করে শেয়ারইটের মতই সব কাজ অনায়াসে করা যাবে।

এক নজরে অ্যাপটির ফিচারগুলোঃ-

১. অ্যাপটি ব্যবহার করে খুব দ্রুত যে কোনো ফাইল স্মার্টফোনে শেয়ার করা যায়।

২. এটি ব্লটুথ থেকে ৪০ গুণ দ্রুত গতিকে কাজ করে থাকে।

৩. এটির সাহায্যে একত্রে পাঁচ জনকে ফাইল শেয়ার করা যাবে।

৪. অ্যাপটিতে রয়েছে ছবি, মুভি, মিউজিক ও অন্যান্য আলাদা আলাদাভাবে আদান-প্রদানের ব্যবস্থা।

৫. সম্পূর্ণ অফলাইনে কাজ করবে এটি। তাই একবার ডাউনলোড করা হলে আর ইন্টারনেট সংযোগ লাগবে না।

এই অ্যাপ টি ডাউনলোড করুন এখান থেকে।

৩। শেয়ার অ্যাপ

Roidbay share appএক স্মার্টফোন থেকে আরেকটিতে ফাইল আদান-প্রদানে ব্লটুথের ব্যবহারই এখন পর্যন্ত বেশি হয়ে থাকে। তবে ফাইলের আকার বড় হলে এতে ঝামেলা হয়। এ জন্য অনেক সময়ের প্রয়োজনও হয়। সহজ ভাবে ফাইল আদান প্রদান করতে আরেকটি ভাল অ্যাপহল শেয়ার অ্যাপ। এতে আপনার ফোনে ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশান হিসাবে অনেক সম্পূরক ফাংশন আছে যা ভীষণ কাজে দেবে।

এক নজরে অ্যাপটির ফিচারগুলোঃ-

১. ই-মেইল বা ব্লুটুথ দ্বারা এটাচমেন্ট হিসেবে সরাসরি এ পি কে ফাইল আদান প্রদান

২. ব্যাকআপ অ্যাপ্লিকেশন

৩. লং প্রেস বৈশিষ্ট্য হিসাবে শেয়ার লিঙ্ক, শেয়ার APK, আনইনস্টল, গুগুল প্লে ব্যাকআপ করা।

৪. অ্যাপটিতে রয়েছে ছবি, মুভি, মিউজিক ও অন্যান্য আলাদা আলাদা ভাবে আদান-প্রদানের ব্যবস্থা। ডাউনলোড করতে চাইলে এখান থেকে করুন।

আজ এখানে শেষ করছি। সামনে আপনাদের কাছে আরও নতুন কিছু নিয়ে হাজির হব সেই পর্যন্ত ভাল থাকবেন।

 

লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে?
FavoriteLoadingপ্রিয় পোষ্ট যুক্ত করুন

১টি কমেন্ট করুন

*