ফেসবুক সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে !!

তরুন্দের মধ্যে ফেসবুক যে জনপ্রিয়তার শীর্ষস্থানটি ধরে রেখেছে, তা বাংলাদেশের তরুণদের ফেসবুক ব্যবহারের দিকে তাকালেই বুঝা যায়। বর্তমানে তরুণেরা তাদের সামাজিক মাধ্যম হিসেবে ফেসবুককেই প্রাধান্য দিয়ে থাকে, কারণ তারা ফেসবুকে তাদের ছবি থেকে শুরু করে ভিডিও এবং তাদের অভিব্যাক্তিগুলোও প্রকাশ করে থাকে। একসাথে অনেক সুবিধা ব্যবহারের জন্যই বোধহয় ফেসবুক তরুণদের কাছে জনপ্রিয়।

পাইপার জ্যাফ্রির সাম্প্রতিক সমীক্ষা মতে, ৩৩ শতাংশ তরুণদের কাছে জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট হচ্ছে ফেসবুক। তিনি ৫,২০০ জন তরুণদের মধ্যে এই সমীক্ষা চালান। অন্যদিকে টুইটার ৩০ শতাংশ তরুণদের জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক। ১৭ শতাংশ তরুণ ইনস্টাগ্রামকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইট হিসেবে বলে মনে করে।

ফেসবুকের ক্ষেত্রে সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে অধিকাংশ তরুণরাই আজকাল ফেসবুককে ব্যাপকভাবে প্রত্যাখ্যান করা শুরু করে দিয়েছে, যদিও ফেসবুক তরুণ সমাজের কাছেই সবচেয়ে জনপ্রিয়।

social-networking-15413-640

বেশ কিছু বছর ধরে, যারা মনে করে ফেসবুক গুরুত্বপুর্ণ সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট, তাদের হার দিনে দিনে কমে যাচ্ছে। তরুণদের কাছেও ফেসবুকের জনপ্রিয়তা ৩০ শতাংশ থেকে ২০ শতাংশতে নেমে এসেছে। এটি শুধু ফেসবুকের ক্ষেত্রেই নয়, সব সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তাই দিন দিন কমে যাচ্ছে।

piper-jaffray-15413-640

ইউটিউব বোধহয় জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে ফেসবুকের জায়গা দখল করে নিতে পারে। বর্তমানে ইউটিউবের পক্ষে ২২ শতাংশ ভোট রয়েছে।

জনপ্রিয়তার দিক থেকে ইন্সটাগ্রাম এবং টুইটারে শক্তিশালী বৃদ্ধি প্রদর্শন করেছে।

ভাইন অ্যাপসের দিক থেকে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে।

জেনে রাখা ভালো যে ফেসবুকের বর্তমান সক্রিয় গ্রাহক সংখ্যা ১ বিলিয়ন। ফেসবুক গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি করার জন্য বর্তমানে বেশ কিছু নতুন ফিচার যোগ করেছে যার মধ্যে গ্রাফ সার্চ এবং ফেসবুক হোম উল্ল্যেখযোগ্য।

 

Author:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *