ফ্রিলান্সিং মাষ্টার :: প্র্যাকটিকাল ফ্রিলান্সিং ক্যারিয়ার (পর্ব – ২৩) | COMILLAIT| Bangla Technology Blog | বাংলা প্রযুক্তি ব্লগ

ফ্রিলান্সিং মাষ্টার :: প্র্যাকটিকাল ফ্রিলান্সিং ক্যারিয়ার (পর্ব – ২৩)

লেখক : | ০ টি কমেন্ট | 261 বার দেখা হয়েছে দেখা হয়েছে । শেয়ার করে আপনবর বন্ধুদের জানিয়ে দিন ।

আস্‌সালামুআলাইকুম, সবাই কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহ্‌র রহমতে অনেক ভাল আছেন। আমিও অনেক ভাল আছি।

আজ কোন বিশেষ বিষয় নিয়ে আলাপ করব না। তবে, কয়েকটা কটু কথা বলার জন্য আজকের এই পোষ্ট। আপনাদের মধ্যে যাদের আমার লেখা ভাল লাগে বা যারা আমার শুভাকাঙ্খি শুধুমাত্র তারাই আজকের লেখাটা পড়বেন এবং কাজে লাগাবেন।

আমরা জানি, ওডেস্কে দুই ধরণের কাজ রয়েছে, ফিক্সড প্রাইস এবং আওয়ারলি জব। ফিক্সড প্রাইস জবটা হল এরকম- বায়ার আপনাকে কাজে হায়ার করার আগে একটা নির্দিষ্ট মূল্যে জব পোষ্ট করবে। তারপর আপনি এই মূল্যে কাজ করতে চাইলে তার অফার গ্রহন করতে পাড়েন এবং যদি তার মূল্যটা আপনার কাছে কম লাগে তাহলে আপনি নিজেও তাকে আরো বেশী মূল্যে অফার করতে পাড়েন। আপনি যদি কাজটা এক মিনিটেও করতে পাড়েন তবুও আপনার ইচ্ছামত মূ্ল্যে বিড করুন, একশত ডলারে যদি আপনার বিড করতে ইচ্ছা হয় তবুও করুন। কোন সমস্যা নাই। বায়ারের যদি ইচ্ছা হয় আপনাকে হায়ার করার তাহলে সে করবেই। তবে উচিত মূল্যেই কাজ করাটা আমার কাছে শ্রেয় মনে হয়।

আরেকটা কাজ হল, আওয়ারলি রেটের কাজ। আসলে, আজকের পোষ্টের প্রধান কথাগুলোই আওয়ারলি রেটের কাজের উপর ফোকাস করেই বলব। আওয়ারলি রেটের কাজ হল- বায়ার ফিক্সড প্রাইসের মত নির্দিষ্ট কোন প্রাইস দিয়ে জব পোষ্ট করে না। সে একটা জব পোষ্ট করবে হোক সেটা বড় বা ছোট। আপনি মূলত বিড করবেন এই জবের আওয়ারলি রেট অনুসারে। অর্থাৎ আপনি যদি মনে করেন, এই জবের জন্য আপনার ঘন্টা প্রতি রেট পাঁচ ডলার হওয়া দরকার আপনি পাঁচ ডলার রেটেই বিড করুন। কত ডলারে বিড করবেন, সেটা নির্ভর করে আপনার উপর। ধরলাম, আপনি একটা কাজে বিড করলেন এবং সেটাতে হায়ার হয়ে গেলেন। এখন, আপনি যত বেশী সময় লাগিয়ে কাজটা করবেন আপনার আয় তত বেশী হবে। এই সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে, আপনি ১ ঘন্টার কাজ ৩ ঘন্টা লাগিয়ে করলেন। আহা… কি মজা! বায়ার কোথা থেকে বুঝবে আপনার কাজের স্পিড কেমন? কোন প্রশ্ন করলে বলবেন, আপনি এই স্পিডেই কাজ করেন। কি মনে করেন? যুক্তিটা কি খারাপ? হ্যা, এই যুক্তিটা খুব খারাপ একটা যু্ক্তি। আসলে আমার মতে এটাকে কোন ‍যুক্তি বলা চলে না, এটা আসলে কুযু্ক্তি। আপনি মাত্র কয়েক ডলার বেশী পাওয়ার জন্য এত নিচে নেমে যাবেন কেন? আপনার মাঝে কি কোন ব্যক্তিত্ব বোধ নেই? আপনি মিথ্যা বলে অন্যজনের অর্থ হাতিয়ে নিবেন এটা আবার কোন ধরণনর ব্যবহার? অন্তত, আপনি যদি আমার ছাত্র বা শুভাকাঙ্কি হন, তাহলে আমি আপনার হাতে ধরে বলি এই ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকুন। একজন মানুষ যখন আপনাকে বিশ্বাস করেছে, আপনি কেন তার বিশ্বাসের অমর্যাদা করবেন? সর্বদা সততাকে সাথে রেখেই কাজ করুন।

আমার কয়েকটা কাজের উদাহরণ দেই- কাজটার আওয়ালি রেট হল $4.5, প্রায় ছয় মাস আগে এই জবে আমি হায়ার হই এবং এখনো সেই জবটি রানিং আছে। আমার বায়ার আমাকে দিয়ে মাত্র দুই ঘন্টা কাজ করিয়েছে। দুই ঘন্টা কাজ করে কাজটি শেষ হয়ে যায়। তবে বায়ার জবটি ইন্ড করেনি। আমি চাইলে এখনো আমার টাইম ট্র্যাকার ওপেন করে তার একাউন্ট থেকে অনেক টাকা নিয়ে আসতে পারি। কিন্তু আমি এই অসৎ উপায় অবলম্বন করি না। আমি চাই সৎভাবে আয় করতে। আমার উপর তার আস্থা আমি হারিয়ে যেতে দেই না।

আরো কয়েকদিন পরে আরেকটা আওয়ারলি রেটের কাজ পেলাম, $5 আওয়ারলি রেটের। আমি মাত্র ২০ মিনিটে কাজটি শেষ করি এবং আমার একাউন্টে মাত্র এক ডলার থেকে কিছু বেশী অর্থ আসে। আমি চাইলে এই কাজটা ৩ ঘন্টা লাগিয়েও করতে পাড়তাম। কিন্তু করি নি। আমি কাজটা শেষ হয়ে যাওয়া মাত্রই বায়ারকে ইনফরম করি। বায়ার আমার কাজে এবং সততায় খুশি হয়ে আমাকে বোনাসসহ ১৫ ডলার দিল।

সাত ডলার আওয়ারলি রেটের আরেকটা কাজ আমার এখনও রানিং আছে। কাজটা মাসখানেক আগেই শেষ হয়েছে কিন্তু বায়ার এখনও জব ইন্ড করেনি। আমি যদি অসৎ উপায় অবলম্বন করি তাহলে প্রতিদিন অনেক অর্থ তার কাছে থেকে নিতে পারি। কিন্তু আমি করি না। কারণ, সৎভাবে কাজ করাটাই আমার উদ্দেশ্য।

ছোট্ট আরেকটা কাজের উদাহরন দেই- ঐকাজটাও আওয়ারলি রেটের। বায়ার আমাকে হায়ার করার আগে আমার কাছ থেকে এস্টিমেটেড সময় জানতে চাইল। আমি বললাম, এই কাজ আমি এক ঘন্টার মধ্যে শেষ করে ফেলব। সে আমাকে পাঁচ ডলার আওয়ারলি রেটে হায়ার করে এবং বলে যে এই কাজের জন্য সে আমাকে পাঁচ ডলারই দিবে। আমি কাজটা করতে গিয়ে ১০ মিনিটেই কাজটা করে নেই, যার ফলে আমার একাউন্টে ১ ডলার এসে জমা হয়। আমি পরে আর কাজ করি নি। বায়ারের সাথে আমার ডিলই ছিল পাঁচ ডলারের, তবু আমি তার কাছ থেকে ১ ডলার এনেছি। আমি চাইলে আরো বেশী আনতে পাড়তাম এবং সে আমাকে অনুমতিও দিয়েছিল কিন্তু আমি অতিরিক্ত কাজটা করিনি। কারণ, আমার কাছে প্রধান ডিল হল ঐ বায়ার আমাকে ৫ ডলার আওয়ারলি রেটে হায়ার করেছে। তাই আমি আওয়ারলি রেট অনুসারে আমার যত প্রাপ্য তত নিব। এর চেয়ে বেশীও নিব না। আবার কমও নিব না। তবে বায়ার যদি বোনাস দেয় সেটা অন্য বিষয়।

তাই আপনারা যারা আমাকে ফলো করতে চান, তারা আমার এ বৈশিষ্ট্যগুলো খারাপ হলেও আপনাদের মধ্যে নিবেন।

যারা সত্যিই সৎ থাকতে চান তাদের জন্য উপরের লেখাগুলোই যথেষ্ট। নিচের লেখাগুলো আপনাদেরকে পড়তে হবে না। আর যারা অসৎ উপায়ে কাজ করতে চান তাদের জন্য আছে কয়েকটা রেড সিগনাল। এগুলো সম্পর্কেএকটু ধারণা দেই-

রেড সিগনাল-১: আপনি যদি সময় বাড়ানোর জন্য আস্তে আস্তে কাজ করেন এবং বায়ার যদি তা বুঝতে পারে তাহলে সে আপনাকে ফিডব্যাক কমিয়ে দিবে।

রেড সিগনাল-২: যদি বায়ার আপনার ফিডব্যাকের সাথে  একটা খারাপ মন্তব্য লিখে দেয় তাহলে মোটামোটি ধরে নিবেন আপনার ফ্রিল্যান্সিংয়ের বারোটা বেজে গেছে।

রেড সিগনাল-৩: এটা অবশ্য শুধু আপনার জন্য, আমাদের দেশের সব ফ্রিল্যান্সারদের উপর এই কাজটা প্রভাব ফেলতে পারে। এটা হল- আপনি যদি কোন বায়ারকে ঠকান, তাহলে সে পরবর্তীতে কোন জব পোষ্ট করবে সময় বলে দিবে যে বাংলাদেশী কোন ফ্রিল্যান্সার এই জবে বিড করতে পাড়বে না। তাহলে আপনি নিজেতো মরলেন সাথে পুরো দেশকেও মাড়লেন।

রেড সিগনাল-৪: যেহেতু অসৎ উপায়কে কোন ধর্মই সাপোর্ট করে না। সেহেতু, আমরা সৃষ্টিকর্তার কাছে থেকেও কিছু শাস্তি উপহার হিসেবে পাওয়ার আশা করতে পারি।

এইযে, শুনেন। হ্যা, আপনাকেই বলছি। আপনার যদি অসৎ উপায়ে আয় করার ইচ্ছা থাকে তাহলে আর কোনদিন http://www.comillait.com এ আমার পোষ্ট পড়ার জন্য আসবেন না। সবাই ভাল থাকবেন।

আল্লাহ্‌ হাফেজ।

মো: আলাউর রহমান রিকন

লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে?
FavoriteLoadingপ্রিয় পোষ্ট যুক্ত করুন

১টি কমেন্ট করুন

*