ফ্রিলান্সিং মাষ্টার :: প্র্যাকটিকাল ফ্রিলান্সিং ক্যারিয়ার (পর্ব – ৯) | COMILLAIT| Bangla Technology Blog | বাংলা প্রযুক্তি ব্লগ

ফ্রিলান্সিং মাষ্টার :: প্র্যাকটিকাল ফ্রিলান্সিং ক্যারিয়ার (পর্ব – ৯)

লেখক : | ১টি কমেন্ট | 248 বার দেখা হয়েছে দেখা হয়েছে । শেয়ার করে আপনবর বন্ধুদের জানিয়ে দিন ।

সম্মানিত পাঠকগন, আস্‌সালামুআলাইকুম। সবাই কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে ভাল আছেন। আজ আমি আপনাদের সাথে ওডেস্কের একটি কাজের বিস্তারিত শেয়ার করব।

গত কয়েকদিন আগে আমি ওডেস্কে একটা কাজ দেখেছিলাম, ওয়েব ব্যানার ডিজাইনের। কাজটা দেখে বিড করতে ইচ্ছা হল। কাজের বিস্তারিত পড়ার চেষ্টা করলাম। দেখতে পেলাম- একজন বায়ার তার কাস্টমারের জন্য পাঁচটা ডিফারেন্ট ওয়েব ব্যানার চান। আমার মনে হল আমি কাজটা পারবো। আমি বায়ারের অতীত দেখতে চাইলাম। দেখলাম বায়ারের ভাল ফিডবেক আছে এবং সে যুক্তরাজ্যের অধিবাসী। যুক্তরাজ্যের অধিবাসী দেখে আমার কাজের আগ্রহ কমে গেল। কারণ, আমি শুধু আমেরিকান বায়ারদের কাজ করতে পছন্দ করি। তারপরেও, এতো কষ্ট করে কাজটার বিস্তারিত পড়লাম, আমার পছন্দও হলো। তাই বিড না করে বেড়িয়ে যেতে মন চায়নি। এর জন্য কাজটাতে বিড করলাম। আর আমার আওয়ালি রেট পাঁচ ডলার দিয়ে দিলাম। কভার লেটারে শুধু বললাম- “ এই কাজটা আমি পাড়বো। আমার প্রোফাইল পোর্টফোলিওতে আমার আগের কাজের স্যাম্পল আছে। আপনার পছন্দ হলে আমাকে হায়ার করবেন।” এই বলে জবটাতে এপ্লাই করে ফেললাম।

দুই দিন পর দেখি বায়ার আমাকেসহ আরো তিনজনকে ইন্টারভিউতে নিয়েছে। আমি ইন্টারভিউয়ের ম্যাসেজ পাওয়ার সাথে সাথে তার ম্যাসেজ দেখলাম। বায়ার আমাকে ‍Skype এ এ্যাড করার জন্য একটা ছোট্ট ম্যাসেজ দিল। আমি তাড়াতাড়ি করে তাকে আমার Skype থেকে এ্যাড করলাম। তারপর বায়ারের সাথে কথা বললাম। সে আমার আগের কাজের জন্য আমার প্রশংসা করল। আর সে আমাকে প্রশ্ন করল যে একটা ব্যানার তৈরী করতে আমার কত সময় প্রয়োজন। আমি উত্তরে বললাম, ”এটা ব্যানারের কোয়ালিটির উপর নির্ভর করে । আপনি যদি কোয়ালিটি ব্যানার চান তাহলেতো তা তৈরী করতে বেশী সময় লাগবেই।” সে আমাকে একটা ভাল ব্যানার তৈরী করতে কত সময় লাগবে তা জানতে চাইল। আমি উত্তরে বললাম, ২ ঘন্টা। সে বলল, “এটা কি বেশী সময় নয়?” আমি বলেছি, “আমি ১০ মিনিটেও আপনাকে ব্যানার তৈরী করে দিতে পারবো।” তারপর সে বলল যে, সে আমাকে প্রতিটি ব্যানার তৈরীর জন্য ২ ঘন্টা সময় দিবে। আমি রাজি হই এবং তার কাছ থেকে তার কোন আইডিয়া আছে কি নেই তা জানতে চাইলাম, আর আরো বললাম যে এই ব্যানারের বিস্তারিত জানাতে, অর্থাৎ ব্যানারের লেখা এবং সাইজ ইত্যাদি। সে উত্তরে জানায়, তার নিজস্ব কোন আইডিয়া নেই, আর স্পেশাল কোন টেক্সট লিখতে হবে না, শুধু কিছু লেখা থাকলেই হবে যা পরবর্তীতে পরিবর্তন করা যাবে। আর সে তার ব্যানারের নির্দ্দিষ্ট পরিমান সাইজ জানাল। তারপর আমি তার কাজ শুরু করলাম। প্রায় দুই ঘন্টা পর আমি তাকে একটা ব্যানার তৈরী করে জানালাম। এবং আরো কিছু স্টাইলের ব্যানার দেখালাম যা পরবর্তী ব্যানারগুলোর জন্য আমি ফলো করবো। নিচে প্রথম ব্যানারটা দেওয়া হলো-

সে তৈরীকৃত ব্যানারটা পছন্দ করলো এবং জানালো আমার সেম্পুল ব্যানারগুলোও তার পছন্দ হয়েছে, কিন্তু সে এটা চাচ্ছে না। সে আরো কিছু চাইছে। তারপর সে বলল, সে আর কাজ করাবে না। কারণ সে কি চাচ্ছে, তা সে বলতে পাড়ছে না।

কিছু পরে সে আবার আমাকে কয়েকটা ব্যানার দেখালো এবং বলল সে ঐ ব্যানারগুলো পছন্দ করে। নিচে ব্যানারগুলো দেখানো হলো-

আমি বললাম, আমি আপনার দেওয়া ব্যানারগুলোর হুবহু তৈরী করতে পারবো। সে বলল যে, সে হুবহু চায় না, সে এমন কিছু চায় যা এই ব্যানারের স্টাইল এবং রংয়ের সাথে মিলে। তারপর আমি আরো দুই ঘন্টা ব্যয় করে ভদ্রলোকের জন্য আরেকটা ব্যানার তৈরী করলাম। নিচে ব্যানারটা শেয়ার করলাম-

তিনি এই ব্যানার দেখে খুব বেশী খুশি হলেন এবং আমাকে ৫ ষ্টার ফিডবেকসহ জবটা শেষ করলেন।

আজ এ পর্যন্তই, সবাইকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়ে বিদায় নিচ্ছি।

লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে?
FavoriteLoadingপ্রিয় পোষ্ট যুক্ত করুন

একটি কমন্টে to “ফ্রিলান্সিং মাষ্টার :: প্র্যাকটিকাল ফ্রিলান্সিং ক্যারিয়ার (পর্ব – ৯)”

  1. May 17, 2012 at 10:11 pm

    এই পর্বটি ভাল হয়েছে

১টি কমেন্ট করুন

*