সায়েন্স ফিকশন :: রহস্যময়ী ভিনগ্রহী (পর্বঃ ১)

[এক]

চারদিকে ক্রমশ অন্ধকার ঘনিয়ে আসছে ।বাড়ছে ধূলির ঝড় ।তবু হাটছে ‘আলিহি’  ,, পাথরের ঘসায় চারটি পা এর অবস্থাই চরম ! ব্যাথায় কুকড়ে আছে সে ।
এত কিছুর পরও থামা যাবেনা । এগোতে যে হবেই তাকে ।
বাচতে থাকে হবেই ।
কিন্তু কিভাবে ?
প্রযুক্তি !হ্যা আন্তজার্তিক বিজ্ঞানাগারেই যাবে সে ।

একটা স্পেস রাইডার হলেই হবে ।পাড়ি জমাবে সে মহাশূন্যে ।
যতখন না পর্যন্ত অন্য কোন গ্রহের সন্ধান না পায় ।
বিপদ ক্রমশই এগিয়ে আসছে ।এতখন ছিল শুধু অন্ধকার আর ধূলিঝড় ।এখন সমস্যা হচ্ছে শ্বাস প্রশ্বাসেরও ।চমকে উঠল আলিহি ।তবে কি মৃত্যু ঘনিয়ে আসছে ?
হ্যা এরকম বাতাসে অক্সিজেনের ঘাটতি শুরু হলে ,মৃত্যু বেশি দূরে নয় ।
হাতের লাইফ টাইমার দিকে তাকাল সে । লাল আলো জ্বলছে ।জীবনের সে প্রান্তে এসে দাড়িয়েছে সে ।
হয়তো বা একই অবস্থা অন্যদেরও ।
কিংবা এতখনে হয়তো পুরো গ্রহে সে একমাত্র প্রাণী ,যে জীবিত ।
টেনে টেনে শ্বাস নিল সে ।মনে হচ্ছে শ্বাসথলেটা ছিড়ে যাবে ।
এবার দৌড়তে থাকে সে ।যে করেই হোক ,শেষ সিগনালটা মুছে যাবার আগেই তাকে স্পেস ষ্টেশনে যেতে হবে ।
[দুই]
সত্যিই অবাক কান্ড ! একি করে সম্ভব ?
গ্রহটা দেখে হতাশা সামলাতে পারলেন না ডাঃ তালহা ।
পুরো নাম ডাঃ তালহা বিন নজরুল ।
নাসায় কর্মরত একমাত্র বাংলাদেশী সে ।
এটাই মহাকাশে তাঁর প্রথম মিশন ।পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মিশনও এটি ।সুতরাং ব্যয়বহুল তো বটেই ।

সময়টা ৩০০১সাল ।পৃথিবীর মানুষেরা ইতিমধ্যেই হার মানিয়েছে আলোকে ।আলোর গতিকে ।
মানুষের তৈরী শত শত যান এখন আলোর গতিতে ছুটে বেড়ায় মহাকাশে এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত ।ব্যয়ও বেড়েছে তেমন ।
পৃথিবীর অবস্থাও প্রায় শোচনীয় ।বনভূমি কমে ১৫% এ দাড়িয়েছে ।
এ যখন অবস্থা ,তখন বিজ্ঞানীরা ব্যস্ত মহাকাশ নিয়ে ।বাইরের পৃথিবীর দিকে ।
অন্য একটা পৃথিবী আবিষ্কারের দিকে ।
পরের পর্ব প্রকাশ হবে ৯/০৫/২০১১ রাত ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে ।বিশেষ কারণবশত প্রথম পর্বটি ছোট হয়ে যাওয়ায় আমি দুঃখিত ।

5 thoughts on “সায়েন্স ফিকশন :: রহস্যময়ী ভিনগ্রহী (পর্বঃ ১)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *