হ্যাকাররা শুনছে ফোন কলের কথাবার্তা বন্দ করুন

হ্যাকাররা শুনছে ফোন কলের কথাবার্তা বন্দ করুন

লেখক : | ০ টি কমেন্ট | 639 বার দেখা হয়েছে দেখা হয়েছে । শেয়ার করে আপনবর বন্ধুদের জানিয়ে দিন ।

কিছুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের এক প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানা গেছে যে, দুর্বল নিরাপত্তা ব্যবস্থার কারণে ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এইচটিসির স্মার্টফোনে হ্যাকাররা ব্যবহারকারীদের মেসেজ, তাদের অবস্থান, এমনকি ফোন কলের কথাবার্তাও শুনতে পারছে। সেই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আর জানা গেছে, প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ ডিভাইসে যথাযথ সিকিউরিটি প্যাচ ইন্সটল করতে ব্যর্থ হয়েছে এইচটিসি। এছাড়া আরও অনেক ডিভাইস এই ঝুঁকির আওতায় রয়েছে। কিন্তু তার কোনো তালিকা এখনো প্রকাশ করা হয়নি।

salman-newgf2205b

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে যে, এইচটিসি ডিভাইসের কোন পরীক্ষা ছাড়াই বাজারে বিক্রি করেছে। এতে তাদের ডিভাইসে প্রি-ইন্সটলড অ্যাপ্লিকেশনগুলো ব্যবহারকারীর নিরাপত্তার জন্য ঝুঁকিপূর্ণও হতে পারে। আর হ্যাকাররা এইসব অ্যাপ্লিকেশনের দুর্বল নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে কাজে লাগিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে ব্যবহারকারীর মেসেজ, ভৌগোলিক অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য এবং শুনতে পারছেন ফোন কথোপকথনও!

এইচটিসির অনেক অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। আর এত প্রি-ইন্সটলড অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে একটি কাস্টম ভয়েস রেকর্ডার অ্যাপ্লিকেশনের উদাহরণ দিয়েছে এই প্রতিবেদনে। এটি এইচটিসির বিভিন্ন ফোনে ইন্সটল করা থাকে। ম্যালিশিয়াস কোড যদি কোনোভাবে হ্যাকাররা ফোনে ইন্সটল করাতে পারে, তাহলে এই ভয়েস রেকর্ডার অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে তারা ব্যবহারকারীর কথাবার্তা রেকর্ড করে পাচার করে দিতে পারবে। প্রতিবেদনে একটি অভিযোগপত্রের কথা বলা হএছে,আর সেখানে তারা লিখেছে, “এইচটিসি এই কাজ করার মাধ্যমে একজন মানুষকে অনুসরণ করা ও ব্যক্তিগত জীবনের বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করার উপায় বের করে দিয়েছে হ্যাকারদের।”

android-hack

কয়েক বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এইচটিসি ছিল। কিন্তু পরে তাদের মার্কেট শেয়ার কমে ১০ শতাংশেরও নিচে এসেছে। আর এর বড় কারন হল স্যামসাং ও অ্যাপল। স্যামসাং ও অ্যাপলের কাছে হেরেই এইচটিসি এই অবস্থা হল। প্রতিবেদনের এই অভিযোগপত্রের এইচটিসিকে কিছু কাজের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে যে, তাদের ওয়্যারলেস পার্টনারদের সহযোগিতায় সিকিউরিটি প্যাচ বের করতে হবে বিভিন্ন ব্যবহারকারীর ডিভাইসের জন্য এবং আগামী ২০ বছর পর্যন্ত প্রতি ২ বছরে একবার করে তাদের ডিভাইসের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়গুলো খতিয়ে দেখতে হবে। প্রতিবেদনের এই অভিযোগে মীমাংসা করতে রাজি হয়েছে এইচটিসির। ওয়েবসাইট সূত্রে এটাই জানা গেছে।

আর তাহলে এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা বেশ নিশ্চিতে ফোন ব্যবহার করতে পারবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

লেখাটি আপনাদের ভাল লেগেছে?
FavoriteLoadingপ্রিয় পোষ্ট যুক্ত করুন

১টি কমেন্ট করুন

*