ইমোশনাল স্ট্যাটাস | অনুভূতি নিয়ে স্ট্যাটাস

ইমোশনাল স্ট্যাটাস

ফেসবুকে ইমোশনাল স্ট্যাটাস বা অনুভূতি নিয়ে স্ট্যাটাস দিতে চান যারা তাদের জন্য এই পোষ্টটি । সের ইমোশনাল স্ট্যাটাস/অনুভূতি নিয়ে স্ট্যাটাস নিয়ে হাজির হলাম যা আপনার হৃদয়ে অনুভুতি জাগাবে ।

আপনার ব্রেনকে আপনার হৃদয়কে কী করতে হবে তা বলতে দেবেন না।কারণ ব্রেন সহজেই হাল ছেড়ে দেয় ।

― Paulo Coelho

আমি বেঁচে ছিলাম অন্যদের সময়ে

হুমায়ূন আজাদ

প্রেম হল ধীর প্রশান্ত ও চিরন্তন

– কাজী নজরুল ইসলাম

এমন কোন হৃদয় থাকা প্রায় অসম্ভব যা খুব উন্মুক্ত , এমন কোন স্বাদ থাকতে পাারেনা যা একই রকম, এমন কোন অনুভূতি থাকতে পাারেনা যা সংগতিতে আছে ।

Maggie Stiefvater

সবাই তোমাকে কষ্ট দিবে, তোমাকে শুধু এমন একজন কে খুঁজে নিতে হবে যার দেয়া কষ্ট তুমি সহ্য করতে পারবে

হুমায়ূন আহমেদ

ভালোবাসা যদি তরল পানির মত কোন বস্তু হত, তাহলে সেই ভালোবাসায় সমস্ত পৃথিবী তলিয়ে যেত। এমন কি হিমালয় পর্বতও

– হুমায়ূন আহমেদ

আমি আমার নিজের দেশ নিয়ে অসম্ভব রকম আশাবাদী৷ আমাকে যদি একশোবার জন্মাবার সুযোগ দেয়া হয় আমি একশোবার এই দেশেই জন্মাতে চাইব৷ এই দেশের বৃষ্টিতে ভিজতে চাইব৷ এই দেশের বাঁশবাগানে জোছনা দেখতে চাইব ।

– হুমায়ূন আহমেদ ( ধন্যবাদ সৃষ্টিকর্তাকে )

পৃথিবীতে অনেক ধরনের অত্যাচার আছে। ভালবাসার অত্যাচার হচ্ছে সবচেয়ে ভয়ানক অত্যাচার। এ অত্যাচারের বিরুদ্ধে কখনো কিছু বলা যায় না, শুধু সহ্য করে নিতে হয়।

হুমায়ূন আহমেদ

বাতাসের আকাশে মেঘের মতো জীবনে অনুভূতি আসে আর সচেতন শ্বাস-প্রশ্বাস হল আমার নোঙ্গর।

thich nhat hanh

আপনি যখন বেশ কয়েকবার কোনো বই পড়েন তখন কি মোটা হয়ে যায় তা ! কেমন অবাক করা বিষয় না? “মো বলেছিলেন …” প্রতিবার পড়ার সময় মনে হয় পাতাগুলির মধ্যে কিছু ফেলে রাখা হয়েছে। অনুভূতি, চিন্তাভাবনা, শব্দ, গন্ধ … এবং তারপরে, আপনি যখন অনেক বছর পরে আবার বইটির দিকে তাকাবেন, আপনি নিজেকে সেখানে দেখতে পেলেন, খানিকটা অল্পবয়স্ক , কিছুটা আলাদা, যেন বইটি আপনাকে চাপা ফুলের মতো সংরক্ষণ করেছে … অদ্ভুত এবং পরিচিত উভয়ই।

Cornelia Funke, Inkspell

ভাসিয়ে দেবার প্রবণতা প্রকৃতির ভেতর আছে। সে জোছনা দিয়ে ভাসিয়ে দেয়, বৃষ্টি দিয়ে ভাসিয়ে দেয়, তুষারপাত দিয়ে ভাসিয়ে দেয়। আবার প্রবল প্রেম, প্রবল বেদনা দিয়েও তার সৃষ্টজগৎকে ভাসিয়ে দেয়

– হুমায়ূন আহমেদ

কারও সাথে থাকার জন্য এটি প্রায়শই যথেষ্ট। তাদের স্পর্শ করার দরকার নেই। এমনকি কথাও বলি না। দুজনের মাঝে একটা অনুভূতি কেটে যায়। তুমি একা নও

Marilyn Monroe

সরাসরি চোখের দিকে তাকিয়ে কেউ মিথ্যা বলতে পারে না। মিথ্যা বলতে হয় অন্যদিকে তাকিয়ে!

হুমায়ূন আহমেদ

যার মুখে অবিচ্ছিন্ন হাসি আছে সে দৃঢ়তা গোপন করে যা প্রায় ভীতিজনক

Greta Garbo

হারিয়ে যাওয়া, তা! আমি সবসময় ভেবেছিলাম যে কেউ যদি নিজের হৃদয়টি জানে তবে সত্যিকার অর্থে সে হারিয়ে যেতে পারে না। তবে আমি আশঙ্কা করি আপনারটি না জেনে আমি হারিয়ে যেতে পারি ❤︎

Cassandra Clare

একজনের অনুভূতি কি অন্যকে বলা সত্যিই সম্ভব?

কাউকে প্রচন্ডভাবে ভালবাসার মধ্যে এক ধরনের দুর্বলতা আছে। নিজেকে তখন তুচ্ছ এবং সামান্য মনে হয়। এই ব্যাপারটা নিজেকে ছোট করে দেয়।

হুমায়ূন আহমেদ

“রাইসান্ড আমাকে এতক্ষণ তাকিয়ে রইল যে আমি তার মুখোমুখি তাকিয়েছিলাম।

“আপনার মানব হৃদয়ে খুশী হোন, ফেয়ার সাহেব। দয়া গয় তাদের প্রতি যারা কিছুতেই কিছু অনুভব করেন না।”

Sarah J. Maas

চমৎকার মেয়েগুলি এমন-এমন জায়গায় থাকে যে ইচ্ছা করলেই হুট করে এদের কাছে যাওয়া যায় না। দূর থেকে এদের দেখে দীর্ঘনিঃশ্বাস ফেলতে হয় এবং মনে মনে বলতে হয়, আহা, এরা কী সুখেই না আছে

– হুমায়ূন আহমেদ

বাস্তবতা এতই কঠিন যে কখনও কখনও বুকের ভিতর গড়ে তোলা বিন্দু বিন্দু ভালবাসাও অসহায় হয়ে পড়ে।

– হুমায়ূন আহমেদ

আবেগগুলি আসে এবং যায় এবং নিয়ন্ত্রণ করা যায় না তাই তাদের নিয়ে চিন্তার কোনও কারণ নেই। শেষ পর্যন্ত, লোকদের তাদের কাজকর্ম দ্বারা বিচার করা উচিত কারণ শেষ পর্যন্ত প্রত্যেকের কাজই তাদের সংজ্ঞায়িত করে তারা কেমন।

Nicholas Sparks

মেয়ে জাতটাই হচ্ছে মায়াবতীর জাত। কখন যে এই মেয়েটি মায়ায় জড়িয়ে ফেলেছে, নিজেই বুঝতে পারেন নি ।

– হুমায়ূন আহমেদ

একমাত্র প্রেম যা আমি সত্যই বিশ্বাস করি তা হল তার সন্তানের প্রতি মায়ের ভালবাসা

Karl Lagerfeld

অনেকদিন পর মেয়ে বন্ধুরা একত্রিত হলে একটা দারুণ ব্যাপার হয়। আচমকা সবার বয়স কমে যায়। প্রতিনিয়ত মনে হয় বেঁচে থাকাটা কি দারুণ সুখের ব্যাপার

– হুমায়ূন আহমেদ

ওহ, লিজি! স্নেহ-ভালবাসা ছাড়া বিয়ে করার চেয়ে অন্য কিছু করুন।

Jane Austen

আরও পড়ুন: 
Bangla নামের অর্থ | 100,001+ শিশুর নামের অর্থ জানুন বাংলা

নামের অর্থ জানতে চান ? নাম দিয়ে এন্টার দিন




ইমোশনাল স্ট্যাটাস

মায়ের সঙ্গে মিল আছে এই জাতীয় মেয়ের প্রতি পুরুষেরা প্রচন্ড আকর্ষন বোধ করে

– হুমায়ূন আহমেদ

জীবনে কিছু কিছু প্রশ্ন থাকে যার উত্তর কখনও মিলেনা, কিছু কিছু ভুল থাকে যা শোধরানো যায়না, আর কিছু কিছু কষ্ট থাকে যা কাউকে বলা যায়না

– হুমায়ূন আহমেদ

আসিবে তুমি জানি প্রিয় আনন্দে বনে বসন্ত এলো ভুবন হল সরসা, প্রিয়-দরশা, মনোহর। বনানতে পবন অশান্ত হল তাই কোকিল কুহরে, ঝরে গিরি নির্ঝরিণী ঝর ঝর

– কাজী নজরুল ইসলাম

সোহাগের সঙ্গে রাগ না মিশিলে ভালবাসার স্বাদ থাকেনা – তরকারীতে লঙ্কামরিচের মত

– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

একদা ছিল না ‘জুতো’ চরণ-যুগলে দহিল হৃদয় মম সেই ক্ষোভানলে। ধীরে ধীরে চুপি চুপি দুঃখাকুল মনে, গেলাম ভজনালয়ে ভজন কারণে!

– কৃষ্ণচন্দ্র মজুমদার

কোনদিন, আচমকা একদিন ভালোবাসা এসে যদি হুট করে বলে বসে, “চলো”, যেদিকে দু’চোখ যায় চলে যাই, যাবে?

– হেলাল হাফিজ

ঢেকে রাখে যেমন কুসুম, পাপড়ির আবডালে ফসলের ঘুম। তেমনি তোমার নিবিঢ় চলা, মরমের মূল পথ ধরে।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

পুষে রাখে যেমন কুসুম, খোলসের আবরণে মুক্তোর ঘুম। তেমনি তোমার গভীর ছোঁয়া, ভিতরের নীল বন্দরে।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

দিয়ো তোমার মালাখানি, বাউলের এই মনটারে – রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

আমি যার শিয়রে রোদ্দুর এনে দেবো বলে কথা দিয়েছিলাম সে আঁধার ভালোবেসে রাত্রি হয়েছে । এখন তার কৃষ্ণ পক্ষে ইচ্ছের মেঘ জোনাকির আলোতে স্নান করে, অথচ আমি তাকে তাজা রোদ্দুর দিতে চেয়েছিলাম

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

এইভাবে এই শূন্য করতলে আমি কি তোমায় লিখেছিলাম তোমার একান্ত নাম ভালোবাসা, কুয়াশার বিনিদ্র শিশির!

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

আমাদের বাসনায় ছিলো কিছু ভুলবোধ প্রাপ্যের পূর্ণতা তাই এতো মনে হয় নিঃস্ব করুণ তাই এতো পাওয়াকেও মনে হয় ব্যর্থতা, মনে হয় ম্লান।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

তোমাকে অনুবাদ করেছি স্বপ্নে। তোমাকে অনুবাদ করেছি তৃষ্ণায়। তোমাকে অনুবাদ করেছি উদাসিনতায়।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

তোমাকে প্রতিদিন লেখার মতো অনেক রকম খবর আছে

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

যেখানে তোমার চোখ খুনি আমি খুন হই প্রতিদিন

– শিরোনামহীন

দুরত্ব জানে শুধু একদিন খুব বেশি নিকটে ছিলাম

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

রাত্রিভর স্বপ্ন দেখে ভোরসকালে ক্লান্ত। যাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখা, সে যদি তা জানতো!

– নির্মলেন্দু গুণ

আবার গাঙে আসবে জোয়ার, দুলবে তরী রঙ্গে, সেই তরীতে হয়ত কেহ থাকবে তোমার সঙ্গে- দুলবে তরী রঙ্গে, প’ড়বে মনে সে কোন্ রাতে এক তরীতে ছিলেম সাথে, এমনি গাঙ ছিল জোয়ার, নদীর দু’ধার এমনি আঁধার তেমনি তরী ছুটবে- বুঝবে সেদিন বুঝবে!

– কাজী নজরুল ইসলাম

তোমার সখার আসবে যেদিন এমনি কারা-বন্ধ, আমার মতন কেঁদে কেঁদে হয়ত হবে অন্ধ- সখার কারা-বন্ধ! বন্ধু তোমার হানবে হেলা ভাঙবে তোমার সুখের মেলা; দীর্ঘ বেলা কাটবে না আর, বইতে প্রাণের শান- এ ভার মরণ-সনে বুঝ্বে- বুঝবে সেদিন বুঝবে!

– কাজী নজরুল ইসলাম

ফুটবে আবার দোলন চাঁপা চৈতী-রাতের চাঁদনী, আকাশ-ছাওয়া তারায় তারায় বাজবে আমার কাঁদনী- চৈতী-রাতের চাঁদনী। ঋতুর পরে ফিরবে ঋতু, সেদিন-হে মোর সোহাগ-ভীতু! চাইবে কেঁদে নীল নভো গা’য়, আমার মতন চোখ ভ’রে চায় যে-তারা তা’য় খুঁজবে- বুঝবে সেদিন বুঝবে!

– কাজী নজরুল ইসলাম

আসবে ঝড়, নাচবে তুফান, টুটবে সকল বন্ধন, কাঁপবে কুটীর সেদিন ত্রাসে, জাগবে বুকে ক্রন্দন- টুটবে যবে বন্ধন! পড়বে মনে, নেই সে সাথে বাঁধবে বুকে দুঃখ-রাতে- আপনি গালে যাচবে চুমা, চাইবে আদর, মাগবে ছোঁওয়া, আপনি যেচে চুমবে- বুঝবে সেদিন বুঝবে।

– কাজী নজরুল ইসলাম

আমার বুকের যে কাঁটা-ঘা তোমায় ব্যথা হানত্ সেই আঘাতই যাচবে আবার হয়ত হ’য়ে শ্রান– আসবে তখন পান’। হয়ত তখন আমার কোলে সোহাগ-লোভে প’ড়বে ঢ’লে, আপনি সেদিন সেধে কেঁদে চাপবে বুকে বাহু বেঁধে, চরণ চুমে পূজবে- বুঝবে সেদিন বুঝবে!

– কাজী নজরুল ইসলাম

পাগলী আমার ঘুমিয়ে পড়েছে মুঠোফোন তাই শান্ত, আমি রাত জেগে দিচ্ছি পাহারা মুঠোফোনের এই প্রান্ত । এ কথা যদি সে জানতো ? আমিও দিই না জানতে, কবির প্রেম তো এরকমই হয় – পান্তা ফুরায় নুন আনতে । হে চির-অধরা আমার, তুমি তো সেকথা জানতে ।

– নির্মলেন্দু গুণ

উচিত ছিলো তোমার বাড়ি এক্কেবারে আমার বাড়ির পাশেই হওয়া । জানলা খুলে চোখ দুটোকে মেলে দিলেই দেখতে পাবো টুকিটাকি জিনিশপত্র শোবার ঘরে অলস চুলে বোলাচ্ছ সেই স্নিগ্ধ লাজুক আঙুলগুলো । উচিত ছিলো জানলা খুললে তোমার আমার দেখতে পাওয়া সারাটি ক্ষন ।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

উচিত ছিলো । উচিত ছিলো রাত্রিবেলা হাসনুহানার শাড়ির মতো তোমার চুলের গন্ধচূর্ন আবেশ আবেশ ভেসে আসা, উচিত ছিলো তোমার গাওয়া আনমনা গান অসংলগ্ন একটু আধটু শুনতে পাওয়া সম্পূর্ন অলক্ষিতে । উচিত ছিলো তোমার বাড়ি এক্কেবারে আমার বাড়ির পাশেই হওয়া ।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

আরও পড়ুন: 
Bangla নামের অর্থ | 100,001+ শিশুর নামের অর্থ জানুন বাংলা

নামের অর্থ জানতে চান ? নাম দিয়ে এন্টার দিন




অনুভূতি নিয়ে স্ট্যাটাস

উচিত ছিলো শোবার ঘরে শাড়ির বাঁধন খুলতে গিয়ে আমায় দেখে মুখ লুকানো লজ্জারাঙা স্নিগ্ধ হাসা আঁচল তলে । কিন্তু কপাল তোমার বাড়ি এখান থেকে সেই কতদূর, পুরোপুরি বিশটি মিনিট খরচ কোরে পৌঁছতে হয় এবং যেটা বলতে বাধে তোমার কাছে যেতে হলেই এই বাজারে পুরোপুরি পাঁচটি টাকা!

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

বৈশাখি মেঘ ঢেকেছে আকাশ, পালকের পাখি নীড়ে ফিরে যায় ভাষাহীন এই নির্বাক চোখ আর কতোদিন? নীল অভিমান পুড়ে একা আর কতোটা জীবন? কতোটা জীবন!!

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

দেবদারু-চুলে উদাসী বাতাস মেখে স্বপ্নের চোখে অনিদ্রা লিখি আমি, কোন বেদনার বেনোজলে ভাসি সারাটি স্নিগ্ধ রাত?

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

চোখ কি জানে না আঁখিতে কতোটুকু মেঘ জ’মে আছে? কতোটুকু বর্ষার পূর্বাভাস আছে, কতোখানি বর্ষা না-হওয়া গভীর স্তব্ধতা।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

চার দেওয়ালের বন্দিশালায় একটি রাতের পাখি, স্বপ্ন ডানায় উড়ান ভরে আকাশ দিয়ে ফাঁকি

– জয় গোস্বামী

তোর সব দুঃখগুলো,তোর সব বিষন্নতাগুলো বুকে নিয়ে একা একা ফিরে যাবো উদাসিন পাখি। এই চোখ,এই স্মৃতি,এই ত্বক,মাংস,হাড় ব্যথার আগুনে পুড়ে ছাই হবে,ভষ্ম হবে- তবু তোর পরাজিত স্বপ্নে আমি কোনদিন আসবো না আর। কোনদিন আসবো না আর আমি এই বিষন্ন পৃথিবী নিয়ে একা একা ফিরে যাবো গভীর নেশায় কোনদিন আসবো না আর,কোনদিন আসবো না আর.

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

প্রতিদিন কিছু ইচ্ছেকে পুড়িয়ে মারি প্রতিদিন কিছু ইচ্ছেকে পাঠাই নির্বাসনে ভালবাসা কি ভীষণ প্রতারক হৃদয় ভেঙেছে যার সেই জানে …

– জয় গোস্বামী

ওগো অকরুণ, কী মায়া জানো, মিলনছলে বিরহ আনো

– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

রাত্রি বলবে নেই, নক্ষত্র বলবে নেই শহর বলবে নেই, সাগর বলবে নেই হৃদয় বলবে- আছে

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

একবার দেখা পাবো শুধু এই আশ্বাস পেলে এক পৃথিবীর এটুকু দূরত্ব আমি অবলীলাক্রমে পাড়ি দেবো। তোমাকে দেখেছি কবে, সেই কবে, কোন বৃহস্পতিবার আর এক কোটি বছর হয় তোমাকে দেখি না।

– মহাদেব সাহা

যদি জানি একবার দেখা পাবো তাহলে উত্তপ্ত মরুভূমি অনায়াসে হেঁটে পাড়ি দেবো, কাঁটাতার ডিঙাবো সহজে, লোকলজ্জা ঝেড়ে মুছে ফেলে যাবো যে কোনো সভায় কিংবা পার্কে ও মেলায়

– মহাদেব সাহা

কয়েক হাজার বার পাড়ি দেবো ইংলিশ চ্যানেল; তোমাকে একটিবার দেখতে পাবো এটুকুভরসা পেলে অনায়াসে ডিঙাবো এই কারার প্রাচীর, ছুটে যবো নাগরাজ্যে পাতালপুরীতে কিংবা বোমারু বিমান ওড়া শঙ্কিত শহরে

– মহাদেব সাহা

এক কোটি বছর হয় তোমাকে দেখি না একবার তোমাকে দেখতে পাবো এই নিশ্চয়তাটুকু পেলে- বিদ্যাসাগরের মতো আমিও সাঁতরে পার হবো ভরা দামোদর…

– মহাদেব সাহা

বেদনার পায়ে চুমু খেয়ে বলি এইতো জীবন, এইতো মাধুরী, এইতো অধর ছুঁয়েছে সুখের সুতনু সুনীল রাত!

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

কুয়াশার বুকে ভেসে একদিন আসিব এ কাঠাঁলছায়ায়; হয়তো বা হাঁস হব কিশোরীর ঘুঙুর রহিবে লাল পায়, সারা দিন কেটে যাবে কলমীর গন্ধ ভরা জলে ভেসে ভেসে; আবার আসিব আমি বাংলার নদী মাঠ ক্ষেত ভালোবেসে

– জীবনানন্দ দাশ

তোমার প্রজাপতির পাখা আমার আকাশ-চাওয়া মুগ্ধ চোখের রঙিন স্বপন মাখা । তোমার চাঁদের আলোয় মিলায় আমার দুঃখ-সুখের সকল অবসান

– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

জেগে আছি, জেগে আছি- যতদূরে যাও জেনো রাত্রির ঘরে আমারো একখানা জানালা আছে, চৈত্রের সব পাখি- সব ফুল- সব প্রতীক্ষারা এই নিশব্দ জানালার কাছে নত হয়ে আসে অঙ্গের সুষমা খুলে যায় সৌরভরাশি।

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

জীবনের বিবিধ অত্যাশ্চর্য সফলতার উত্তেজনা অন্য সবাই বহন করে করুক; আমি প্রয়োজন বোধ করি না : আমি এক গভীরভাবে অচল মানুষ হয়তো এই নবীন শতাব্দীতে নক্ষত্রের নিচে

– জীবনানন্দ দাশ

নিজের বোকামি বুঝতে পারার পর কারো দুঃখ হয়, কারো হাসি পায়

– সমরেশ মজুমদার

আমি বন্ধনহারা কুমারীর বেনী, তন্বী নয়নে বহ্নি, আমি ষোড়শীর হৃদি-সরসিজ প্রেম উদ্দাম, আমি ধন্যি

– কাজী নজরুল ইসলাম

অধ্যাপক, দাঁত নেই—চোখে তার অক্ষম পিঁচুটি; বেতন হাজার টাকা মাসে—আর হাজার দেড়েক পাওয়া যায় মৃত সব কবিদের মাংস কৃমি খুঁটি; যদিও সে সব কবি ক্ষুধা প্রেম আগুনের সেঁক চেয়েছিলো—হাঙরের ঢেউয়ে খেয়েছিলো লুটোপুটি

– জীবনানন্দ দাশ

বরং নিজেই তুমি লেখো নাকো একটি কবিতা—’ বলিলাম ম্লান হেসে; ছায়াপিণ্ড দিলো না উত্তর; বুঝিলাম সে তো কবি নয়— সে যে আরূঢ় ভণিতা: পাণ্ডুলিপি, ভাষ্য, টীকা, কালি আর কলমের ‘পর ব’সে আছে সিংহাসনে—কবি নয়—অজর, অক্ষর

জীবনানন্দ দাশ

নিসঙ্গ টেবিলে পা তুলে অসভ্য ভাষায় আমি একাকি বোসে আছি নিখুঁত পোট্রেট

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

কাটা আঙুল থেকে রক্তের মতো ঝ’রে ঝ’রে পড়ে ইচ্ছার নীল অক্ষমতা

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

যেতে যেতে এই বাস থেমে যাবে বকুল তলায় যাত্রীরা পড়বে নেমে যে যার মতোন

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

একটি মানুষ খুন কোরে এই তো এলাম আমি প্রার্থনা ঘরে, দ্যাখো শরীরে আমার কি মধুর আতরের ঘ্রান কি মোহন স্বর্গীয় শোভা সারা অবয়ব জুড়ে, আহা, ঈশ্বরই সব মংগল করেন

– রুদ্র মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

Author: Shahriar Ahmed Biddut

I am a student , freelancer, blogger, web designer and WordPress Developer .I have learnt HTML5 , CSS3 , Javascript , Bootstrap , Jquery & Bootstrap for designing purposes and php & mysql for backend development . I also use elementor to design wordpress pages.

Leave a Reply