টপ ১০টি ভিডিও এডিটিং অ্যাপ অ্যান্ড্রয়েডের জন্য

ভিডিওতে টেক্সট (text) লিখা, special effect যোগ করা,image যোগ করা , intro দেয়া, background music দেয়া, thumbnail যোগ করা, headline যোগ করা, ভিডিওর অংশ কাটা এবং আলাদা আলাদা ভিডিও ক্লিপ একসাথে যোগ করা। এগুলি সব আপনারা এই video editing সফটওয়্যার গুলি ব্যবহার করে সহজেই করতে পারবেন । মোবাইলের এই ছোট্ট ছোট্ট ভিডিও এডিটিং এপস গুলি আপনার ভাল কাজে আসবে, যদি আপনি android smartphone থেকেই এডিটিং এর সব কাজ করতে চান।

এন্ড্রয়েড টপ ১০টি ভিডিও এডিটিং অ্যাপ :

 ১ . Kinemaster – Pro

KineMaster এমন একটি application যেটা advanced এবং professional ভিডিও তৈরি করার জন্য সব দিক দিয়ে সক্ষম। এই app ব্যবহার করে আপনারা Android মোবাইলেই কম্পিউটারের মতো ভিডিও এডিট করতে পারবেন। এই এন্ড্রয়েড সফটওয়্যার অনেক অনেক শক্তিশালী। সব থেকে ভালো এর user interface । আপনি অনেক সহজেই এর অ্যাডভান্সড ফাঙ্কশন গুলি ব্যবহার করতে পারবেন। অন্য সব ধরণের features এর সাথে কিছু আলাদা এডিটিং অপসন যেমন, ভিডিওর মাঝে মাঝে text লিখা, effects দেয়া, subtitle দেয়া আদি এর দ্বারা সম্ভব।

২. FilmoraGo – Free Video Editor

FilmoraGo একটি শক্তিশালী ভিডিও বানানোর/এডিট করার এপ্লিকেশন যাকে ব্যবহার করেন অনেক professional YouTuber রা (বাংলাদেশি অনেক ইউটিউবার ও এটি ব্যবহার করে )। সকল ধরণের সাধারণ থেকে advanced functions যেমন, ভিডিওর সাথে music ও effects যোগ করা, title যোগ করা, ভিডিওর জন্য theme নির্বাচন করা, video cutting এবং trimming এর মতো সব ধরণের editing options আপনারা পাবেন।

Download FilmoraGo app

৩. Adobe Premiere Clip

Adobe prime clip এপটি video edit করার জন্য অনেক ভালো এবং এটি quick service দেয়। এটি অনেক ফাস্ট এবং ব্যবহার করাও খুব সহজ। Premiere clip editor সম্পূর্ণ ফ্রি এবং আপনি এটি দ্বারা প্রফেশনাল ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

এর Automatic video creation ফাংশন দ্বারা আপনারা যেকোনো ফটো বা ভিডিও ক্লিপ সিলেক্ট করে automatically ভিডিও এডিট করতে পারবেন। তাছাড়া, এর কিছু advanced এডিটিং টুলস ব্যবহার করে manually নিজের ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

Download Adobe premiere clip

৪. PowerDirector

অন্যান্য apps গুলির মতোই PowerDirector আপনার বানানো সাধারণ ভিডিওকে আকর্ষিত এবং প্রফেশনাল রূপ দিতে পারবেন। কিন্তু, PowerDirector app এ আপনারা অনেক ধরণের আলাদা আলাদা কিছু advanced editing options পাবেন, যেগুলি অন্য এপগুলোতে পাবেন না।

এর দ্বারা আপনারা ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ড (video background) বদলানো, ভিডিও কাটা এবং জোড়া লাগানো, স্লো মোশনে এডিট , বিভিন্ন ধরণের প্রফেশনাল টুল, বিভিন্ন ভিডিও এফেক্টস, ফটো দিয়ে ভিডিও বানানো এবং আরো অনেক ধরণের function পেয়ে যাবেন। মোবাইলে ভিডিও এডিটিং এর সেরা এপ PowerDirector কে বলা যায়।

Download PowerDirector app

৫. VivaVideo – editor and photo movie

Viva video এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে ভিডিও তৈরি করার সেরা app হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। কিছু, বিখ্যাত android bloggers রাও viva video app কে বেস্ট এবং সবচেয়ে ভালো video editing app হিসেবে বলেছেন । এই app ব্যবহার করে আপনারা নিজের মোবাইল থেকেই প্রফেশনাল ভাবে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। কিছু দরকারি এডিটিং ফাঙ্কশন যেমন, Split, trimming, merging, subtitle দেয়া, video effects(FX) এবং আরো অনেক এডিটিং এখানে আপনারা করতে পারবেন।

viva video app টি বেস্ট এন্ড্রয়েড ভিডিও এডিটিং এপস হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে।

Download Viva video

৬. Quik video editor

Quik android app একটি আলাদা রকমের মাধ্যম নিজের বানানো ভিডিও মোবাইলেই এডিট করার। এইটা অনেক ফাস্ট এবং পুরোটাই ফ্রি। আপনি নিজের মোবাইল গ্যালারি থেকে যেকোনো ফটো বা ভিডিও ক্লিপ বেঁচে নিয়ে তাকে এডিট করতে পারবেন। Quik দ্বারা আপনারা automatically যেকোনো ক্লিপ এডিট করতে পারবেন এর automatic video creation function দ্বারা। কিছু সাধারণ এডিটিং টুল যেমন, ভিডিও ক্রপ করা (crop), এফেক্টস (effects) লাগানো, টেক্সট ব্যবহার করা এবং আরো অনেক টুলস আপনারা এখানে পাবেন।

Download

৭. Magisto – editor & slideshow maker

Magisto একটি award winning ফ্রি এডিটর app । এর ব্যবহার করে কেবল ৩ টি স্টেপ এই আপনারা আকর্ষিত প্রফেশনাল ভিডিও বানিয়ে নিতে পারবেন নিজের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য। প্রায় ১০০ মিলিয়ন লোকেরা এই app নিজের মোবাইলে ইনস্টল করেছেন। AI ফাঙ্কশন ব্যবহার করে আপনারা automatically কিছু না করেই ভিডিও বানিয়ে নিতে পারবেন। কিন্তু, আগে আপনার একটি ভিডিও বা ফটো নিজের মোবাইল থেকে নির্বাচন করে নিতে হবে। তারপর, একটি ভিডিও স্টাইল (video style) বেছেনিতে হবে। এর পর সবটাই নিজে নিজে হয়ে যাবে।

Download

৮. Funimate

Funimate একটি জনপ্রিয় তবে হালকা অ্যান্ড্রয়েড ভিডিও এডিটর অ্যাপ। এটি দিয়ে আপনার ডিভাইসে থাকা ছবি দিয়েই অটোমেটিক মিউজিক ভিডিও বা অন্যান্য ভিডিও বানাতে পারবেন। এতে ১৫টি ফিল্টার রয়েছে যা দিয়ে ভিডিওটিকে আরো সুন্দর করে তোলা সম্ভব। এই অ্যাপটির মাধ্যমে আপনি ভিডিও পোস্ট করতে পারবেন।

ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

৯.Movie Maker Filmmaker

এই ভিডিও এডিটর অ্যাপটি দিয়ে আপনি ভিডিও বা বড় মুভি এডিট করতে পারবেন। অ্যাপটিতে ভিডিও ট্রিম, ক্রপ, রিঅর্ডারসহ আরো অনেক অপশন পাবেন ভিডিও এডিট করার। আপনার বানানো কাস্টম ফিল্টার দিয়ে ভিডিও আরো অসাধারন করে তুলতে পারবেন। এই অ্যাপটি ফ্রিতে গুগল প্লেস্টোর থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন। অ্যাপটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

১০.Video Editor

এই অ্যাপটির নাম খুবই সাধারণ। সাধারণত কিছু হ্যান্ডসেটের ডিফল্ট ভিডিও এডিটর অ্যাপ থাকলে সেটির নাম এমন থাকে। তবে অতি সাধারন দেখালেও এটি বেশ কাজের একটি অ্যাপ। এটি দিয়ে ভিডিও ট্রিমিং করা, নতুন ক্লিপ যোগ করা, ভিডিওতে গান যোগ করা যায়। এছাড়াও ভিডিওতে বিভিন্ন মজার ইমোজি ও টেক্সট যুক্ত করা যায় এই অ্যাপ দিয়ে।

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

বোনাস :

১১.Videoshop

সাধারন কোনো অ্যাপ চাইলে এমন আরেকটি অ্যাপ হচ্ছে Videoshop। এতে ভিডিও এডিট করার সাধারন অপশন গুলো রয়েছে। সাথে আছে ভয়েস রেকর্ড করে যুক্ত করার ব্যবস্থা। এতে আপনি মোশন ভিডিও বানাতে ও একটি ভিডিও উল্টোভাবে প্লে করে এডিট করতে পারবেন। 

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

১২.Videoshow

Videoshow একটি বেশ শক্তিশালী ভিডিও এডিটর অ্যাপ। এটিতে সব ধরনের সাধারন এডিটিং অপশন রয়েছে। অ্যাপটি ব্যবহার করে ভিডিওতে স্টিকার, টেক্সট, বিভিন্ন ইফেক্ট ও থিম যুক্ত করতে পারবেন। এছাড়াও ভিডিও এর উপরে চাইলে আঁকতে পারবেন। এতে ভিডিও রেকর্ড করে আলাদাভাবে ভয়েস যোগ করার সুবিধাও রয়েছে। 

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

১৩. VQuick

এটি মূলত যারা সাংবাদিক বাVlogging করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য। এতে ভিডিও এডিট করার সব সাধারন অপশন রয়েছে। এতে আছে বিল্ট-ইন সোশ্যাল মিডিয়া যেখানে আপনি আপনার এডিট করা ভিডিও শেয়ার করতে পারবেন অন্যদের সাথে। ভিডিওটি কেউ একবার দেখার পর তা ডিলিট করে ফেলার অপশন রয়েছে। এতে অ্যাপটির অন্যান্য ব্যবহারকারীদের সাথে চ্যাট করার অপশনও রয়েছে। এটি সম্পুর্ন ফ্রি একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ।

অ্যাপটি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

Author: drmasud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *