নাম রাখা নিয়ে হাদিস | বাচ্চার নাম রাখার নিয়ম

নাম রাখা নিয়ে হাদিস

আপনি কি জানতে চাচ্ছেন কেমন নাম রাখা যাবে ? নাম রাখার নিয়ম কি? ,নাম রাখা নিয়ে হাদিস ?, বাচ্চার নাম রাখার নিয়ম ? । তাহলে এ পোষ্টটি আপনার জন্যই ।

নামের অর্থ সুন্দর হলে রাখতে সমস্যা নেই ।
প্রথমত, মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব । মানুষ এর উদ্দেশ্য থাকা উচিত আল্লাহ তাআলাকে ভয় করা,আল্লাহ তাআলার ইবাদত করা ও আল্লাহ তাআলাকে খুশি করা । মানুষের কখনো অহংকার করা উচিত নয় ,অহংকার আল্লাহ তাআলার ভূষণ । আল্লাহ তাআলার সামনে নিজেকে ছোট করলে তাতে মনে হয় না কোনো ক্ষতি আছে । সে নামে হোক বা কাজে ।

দ্বিতীয়ত অনেক সাহাবিদের(রাঃ) নাম পশুপাখির নামানুসারে রাখা । পশুপাখির নামানুসারে রাখা মানে তো অভিশপ্ত নয় !!
নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলা ভালো জানেন 🙂
ধন্যবাদ ।

বাচ্চার নাম রাখার নিয়ম বা নাম রাখা নিয়ে হাদিস নিম্নরূপ :

হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) বলেছেন, ‘সাহাবায়ে কেরাম আরজ করলেন, ইয়া রাসুলাল্লাহ! মাতা-পিতার হক কি, তাতো আমরা জানলাম। কিন্তু মাতা-পিতার ওপর সন্তানের হক কি? রাসুল (সা.) বললেন, ‘মাতা-পিতা সন্তানের সুন্দর নাম রাখবে এবং তাকে সুশিক্ষা দিবে। ( আবু দাউদ: ৪৮৭০ )।

রাসুল (সা.) বলেন, ‘তোমরা নবীদের নামে নামকরণ করো, ফেরেশতাদের নামে নামকরণ করো।’ (আদাবুল মুফরাদ: ৮৪৩)।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) আসিয়া (বিদ্রোহী) নাম পরিবর্তন করে বললেন, ‘তোমার নাম জামিলা (সুন্দরী) রাখো।’ (আদাবুল মুফরাদ: ৮২৭)।

এ সম্পর্কে ইরশাদ হয়েছে, ‘উত্তম নামসমূহ আল্লাহরই। তোমরা তাকে সে নামেই ডাকো। আর যারা নাম বিকৃত করে, তাদেরকে বর্জন করো। তাদের কৃতকর্মের ফল অতিশীঘ্র তাদের দেয়া হবে। (সুরা আরাফ: ১৮০)। 

Author: Biddut

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *