সেলফোন ট্র্যাকিং থেকে বাঁচার উপায়| মোবাইল লোকেশন ট্র্যাক থেকে বাঁচার উপায়

অপরাধীর বিষয়ে আমি কোন বাঁচার টিপস শেয়ার করব না, কেননা অপরাধীর জন্য আমার মনে কোন স্থান নেই। তবে আপনি যদি সাধারন ব্যক্তি হয়ে থাকেন এবং হ্যাকিং এর কবল আর সেলফোন ট্র্যাকিং থেকে বাঁচতে চান তবে আর্টিকেলটি আপনার কাজে লাগতে পারে।

  • প্রথমত : আপনার ফোনে সিকিউরিটি লক ব্যবহার করুণ, যেটাকে লক স্ক্রীন লক বলেও জানেন। হতে পারে আপনার কাছের কোন ব্যক্তিই আপনার ফোনে কোন ম্যালওয়্যার ইন্সটল করে দিল, আপনার ফোনকে ট্র্যাক করার জন্য।
  • দ্বিতীয়ত; আপনার ফোন কখনোই রুট করবেন না, কেনোনা এধরনের অ্যাপ কাজ করার জন্য বেশিরভাগ সময়ই ফোনে রুট অ্যাক্সেসের ডিম্যান্ড করে।
  • তৃতীয়ত; কোন অনাকাঙ্ক্ষিত মেইল বা ম্যাসেজ ওপেন করবেন না এবং সেটার সাথে যদি কোন লিঙ্ক বা অ্যাটাচমেন্ট থাকে সেটাতে ক্লিক করবেন না। মেইলটি ওপেন করার আগে অবশ্যই যাচাই করে নিন, সেটা আপনার কাছে আসার কথা ছিল কিনা। যেকোনো ভাউতাবাজী অফার ওয়ালা মেইলকে বিশ্বাস করবেন না।
  • চতুর্থত; গুগল প্লে স্টোর বাদে অন্য কোন সোর্স থেকে কোন অ্যাপ ডাউনলোড করা থেকে বিরত থাকুন, অ্যামাজন স্টোর ব্যবহার করতে পারেন, কিন্তু যেকোনো অ্যাপ স্টোর ব্যবহার করার আগে যাচাই করে নিন, সেটি কতটা জনপ্রিয়। পঞ্চমত; ফোনে অ্যাপ ইন্সটল করার আগে বা ইন্সটল থাকা অ্যাপস গুলোর পারমিশন চেক করে দেখুন, যাচায় করুণ সেটি অঝথা পারমিশন ডিমান্ড করে রেখেছে কিনা। ধরুন আপনি একটি ফটো এডিটর অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন, তো সাধারনভাবে ফটো এডিটর অ্যাপ ফোনের ক্যামেরা, মাইক, ফাইলস ইত্যাদির পারমিশন চায়। কিন্তু অ্যাপটি যদি ম্যাসেজ, ইমেইল, কন্টাক্ট ইত্যাদি পারমিশন চেয়ে বসে থাকে তবে অ্যাপটি ব্যবহার না করায় ভালো, বরং অন্য অল্টারনেটিভ অ্যাপ খুঁজে দেখতে পারেন।

আপনার ফোনে একবার ম্যালওয়্যার প্রবেশ করিয়ে দিলে আপনার ফোন যদি আপনি অফ ও করেন তবুও হ্যাকার আপনার ফোনের অ্যাক্সেস পেতে পারবে। কেনোনা ফোন অফ/অন হাইজ্যাক নামেও ম্যালওয়্যার রয়েছে। যাই হোক, সর্বউচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিচের উপস্থিত বুদ্ধিকে কাজ লাগান এবং সিকিউরিটি প্র্যাকটিস গুলোকে চলতি রাখুন।

Author: drmasud

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *